৭ দিন আগেই এসিড কিনে রেখেছিলাম, রিমান্ডে মনির » Leading News Portal : BartaBangla.com

বার্তাবাংলা ডেস্ক »

41940_b2বার্তাবাংলা ডেস্ক ::আঁখি বিয়েতে রাজি না হওয়ায় ঘটনার ৭ দিন আগেই ভৈরব থেকে এসিড কিনে আনে মনির। তিন দিনের রিমান্ডে এ তথ্য জানায় সে। গতকাল রিমান্ড শেষে মনিরকে আদালতে হাজির করা হয়েছে বলে জানান তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের এসআই তপন চন্দ্র সাহা। রিমান্ডে মনির জানায়, গত বছর ১০ই মে পরিবারের অসম্মতিতে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয় মনির ও আঁখি।
এরপর মনিরের শারীরিক ও মানসিক অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে তালাক দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় আঁখি। গত বছরের ১০ই জুন উভয়ের সম্মতিতে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। কিন্তু এরপর থেকেই মনির আঁখিকে পুনরায় বিয়ে করার জন্য চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। রিমান্ডে মনির জানায়, আঁখি বিয়েতে রাজি না হওয়ায় তার পরিবারকে হত্যার হুমকি দেয় সে। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে তাকে হয়রানিও করে । পরিবারকে হত্যার ভয়ে একপর্যায়ে বিয়েতে রাজি হয় আঁখি। এরপর নিজের প্রায় ৩২ শতাংশ জমি আঁখির নামে লিখে দেয় মনির। কিন্তু এর কিছু দিন পরই আঁখি ওই জমি মনিরের নামে ফিরিয়ে দিলে বিয়েতে আঁখির আপত্তির কথা বুঝতে পারে। এরপরই তাকে এসিড ছোড়ার পরিকল্পনা করে বলে জানায় মনির। গতকাল আদালতের আদেশক্রমে মনিরকে জেল-হাজতে পাঠানো হয়েছে।
এসিড বিক্রেতা রাশেদ রিমান্ডে: ভৈরব শহর থেকে আটক এসিড বিক্রেতা রাশেদের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে ঢাকার সিএমএম আদালত। গতকাল ডিবি পুলিশ রাশেদের ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে বলে জানান মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তপন চন্দ্র সাহা। উল্লেখ্য, ১৫ই জানুয়ারি চানখাঁরপুল এলাকার একটি কাজী অফিসে নিয়ে ইডেন কলেজের ছাত্রী শারমিন আক্তার আঁখিকে কুপিয়ে ও চেহারায় এসিড ছুড়ে পালিয়ে যায় মনির ও তার এক সহযোগী মাসুদ। বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আঁখি।

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

মন্তব্য করুন »