৪২বছর পর আর্জেন্টিনাকে হারাল পর্তুগাল

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: বিশ্বকাপের পর ঠিক যেন ছন্দটা খুঁজে পাচ্ছে না আর্জেন্টিনা দল। গত মাসে ব্রাজিলের কাছে হারের পর এবার পর্তুগালের বিপক্ষেও হেরে গেল আর্জেন্টিনা। ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে একমাত্র গোলে হেরে গেছে ২০১৪ ব্রাজিল বিশ্বকাপের রানার্সআপরা।

এর আগে ১৯৭২ সালের সে ম্যাচে আলবিসেলেস্তেদের ৩-১ গোলে হারিয়েছিল পর্তুগাল। দীর্ঘ ৪২ বছর পর আর্জেন্টিনাকে দ্বিতীয়বারের মত হারের তিক্ত স্বাদ দিল পর্তুগাল। আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে শেষ মুহূর্তের নাটকীয়তায় একমাত্র গোলে জিতেছে তারা। ফলে মধুর প্রতিশোধও নেয়া হলো পর্তুগালের। কেননা ২০১১ সালে শেষ সাক্ষাতে আর্জেন্টাইনদের কাছে ২-১ গোলে হেরেছিল পর্তুগাল।

ম্যাচে দ্বাদশ মিনিটেই এগিয়েই যেতে পারতো আর্জেন্টিনা। তিয়াগো গোমেস এবং পেপেকে পেছনে ফেলে দুর্দান্ত গতিতে এগিয়ে যান মেসি। তারপর এগিয়ে আসা পর্তুগালের গোলরক্ষকের দুই পায়ের মধ্যে দিয়ে শট নিয়েছিলেন মেসি, কিন্তু বল গোলপোস্টে লেগে ফিরে আসে।

মেসির ওই দুর্ভাগ্যের পর আক্রমণে আরো মনোযোগী হয় মেসি-হিগুয়াইনরা। প্রথমার্ধের বাকি সময়েও আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে লড়াই জমে ছিল কিন্তু কোনো পক্ষই গোল করতে পারেনি।

বিরতির সময় মেসি ও রোনালদোকে তুলে নেন উভয় দলের কোচ। দ্বিতীয়ার্ধে আর মাঠেই নামেননি এ সময়ের সেরা এই দুই তারকা।

৬১তম মিনিটে আক্রমণ বাড়াতে গনসালো হিগুয়াইনকে বসিয়ে কার্লোস তেভেজকে নামান আর্জেন্টিনার কোচ জেরার্দো মার্তিনো। তাতে অবশ্য তেমন বিশেষ কোনো সুবিধে করতে পারেনি লাতিন আমেরিকার পরাশক্তিরা। প্রথমার্ধের মতো বল দখলে এগিয়ে থাকলেও বলার মতো কোনো সুযোগই তৈরি করতে পারছিল না তারা।

ম্যাচটি গোলশূন্য ড্রয়ের দিকেই এগোতে থাকে। তবে যোগ করা সময়ের চরম নাটকীয়তা তখনও বাকি।

দুই মিনিটের যোগ করা সময়ে বাজিমাত করেন রাফায়েল গাহেইরো। ডি বক্সের মধ্যে ডান দিকের গোল লাইনের কাছ থেকে ক্রস দিয়েছিলেন বদলি মিডফিল্ডার রিকার্দো কুয়ারেসমা। তা থেকেই দুর্দান্ত এক ডাইভে হেড করে বল জালে পাঠান করেন ২০ বছর বয়সী ওই ডিফেন্ডার।

জাতীয় দলের হয়ে দ্বিতীয় ম্যাচে খেলতে নেমেই জয়ের নায়ক হলেন বদলি হিসেবে নামা গাহেইরা। কোচ জেরার্দো মার্তিনোর অধীনে আর্জেন্টিনার এটা দ্বিতীয় হার।

অন্যদিকে কোচ ফের্নান্দো সান্তোস দায়িত্ব নেবার পর টানা তৃতীয় ম্যাচ জিতলো পর্তুগাল।