বার্তাবাংলা ডেস্ক »

Dating App

miloshবার্তাবাংলা ডেস্ক ::  চেক প্রেসিডেন্ট মিলোস জেমানের ওপর সোমবার ডিম হামলা চালিয়েছে  বিক্ষুব্ধ জনতা। এই ডিম হামলার শিকার হয়েছেন তার সঙ্গে থাকা  জার্মান প্রেসিডেন্ট গাউকও।

সোমবার চেক প্রজাতন্ত্রে সাড়ম্বরে উদযাপিত হয় ভেলভেট রেভুলেশনের ২৫তম বার্ষিকী। এই বিশেষ দিনটিতে প্রাগের এক বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এক সমাবেশে হাজির হয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট মিলোস জেমান। তার সঙ্গে আরো ছিলেন জার্মানি, হ্যাঙ্গেরি, পোল্যান্ড ও স্লোভাকিয়ার সরকার প্রধানরা।

প্রসঙ্গত, ১৯৮৯ সালের ১৭ নভেম্বর তৎকালীন কমুনিস্ট সরকারের বিরুদ্ধে ছাত্রদের বিক্ষোভে পুলিশি হামলার মধ্য দিয়ে এই বিপ্লবের সূচনা হয়েছিল।

জেমানের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিনের ক্ষোভ প্রকাশ করতে এই দিনটিকেই বেছে নিয়েছিল প্রতিবাদী জনতা। সমাবেশে ভিন্ন মতাবলম্বী নাট্যকার ও সংগঠক ভাকলাভ হাভেলের নেতৃত্বে হাজার হাজার বিক্ষোভকারী প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ দাবি করেন। ফুটবল রেফারির মত অনেকের হাতে শোভা পাচ্ছিল রেড কার্ড।

এক পর্যায়ে সমাবেশ থেকে প্রেসিডেন্টকে লক্ষ্য করে ডিম হামলা  শুরু  হয়। শুধু ডিম নয়, স্যান্ডুউইচ আর টমেটোও নিক্ষেপ  করেন অনেকে। একটি ডিম গিয়ে পড়ে জার্মান প্রেসিডেন্ট জোয়াচিম গাউকের মাথায়। এতে অবশ্য কিছু মনে করেননি প্রেসিডেন্ট গিউক।

বিক্ষোভকারী জনতা তখনও ‘শেম, শেম’ এবং ‘রিজাইন, রিজাইন’ বলে সমানে চিৎকার করে চলেছে। জনতার ডিম হামলা থেকে প্রেসিডেন্টকে রক্ষা করতে ততক্ষেণে কালো ছাতা মেলে ধরেছে নিরাপত্তা কর্মীরা। প্রেসিডেন্ট জেমান তখন বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশ্য করে বলেন,‘আমি তোমাদের ভয় পাই না। পাঁচ বছর আগে এ ধরণের বিক্ষোভ করা এত সহজ ছিল না। বুকের পাটা লাগত। আমি তখন বিক্ষোভে অংশ নিয়েছিলাম। তোমরা তো ভীরুর দল! এখানে ভিড়ের মধ্য থেকে ডিম ছুঁড়ে আমাদের ভিজিয়ে দিতে এসেছ।’

চেক সরকারের অতিরিক্ত রুশ প্রীতির কারণে বিরক্ত সে দেশের জনগণ। তাদের অভিযোগ, এই সরকার তাদের দেশে রুশ কলোনি স্থাপন করতে চাইছে। সম্প্রতি রুশ আগ্রাসনকে ইউক্রেনের আভ্রন্তরীণ সমস্যা হিসেবে উল্লেখ করে জনরোষে পড়েন প্রেসিডেন্ট জেমান।

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »