রাবি মঙ্গলবার পর্যন্ত ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ

বার্তাবাংলা রিপোর্ট ::  রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক একেএম শফিউল ইসলামের হত্যার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে সোমবার ভোর পর্যন্ত আরো ২৯ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার রাত ও রোববার দিনের আটক নিয়ে এ নিয়ে আটকের সংখ্যা ৪৪ জনে দাঁড়িয়েছে।

সোমবার সকাল ১০টায় রাজশাহী মহানগীর মতিহার থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  (ওসি) আলমগীর হোসেন এ তথ্য জানিয়েছেন।

এদিকে এ হত্যার প্রতিবাদে দ্বিতীয় দিনের মতো ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি চলছে।

সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো বিভাগে ক্লাস-পরীক্ষা নেয়া হয়নি। মঙ্গলবারও বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রকার শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষক সমিতি।

এ বিষয়ে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন বলেন, ‘ড. শফিউলের হত্যাকারীদের আটক করতে একসঙ্গে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ, মতিহার থানা পুলিশসহ অনেকগুলো টিম কাজ করছে। বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন মির্জাপুরের রিমা ছাত্রাবাস থেকে ৫ শিক্ষার্থীসহ সারারাত অভিযান চালিয়ে বিনোদপুর, মির্জাপুর, কাটাখালি, চৌদ্দপাইসহ বিভিন্ন স্থান থেকে ২৯ জনকে আটক করা হয়।

ওসি বলেন, এর আগে মহানগর পুলিশের একটি দল বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিনোদপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ‘ইসলামীয়া কলেজের’ অধ্যক্ষ হুমায়ুন আহম্মেদসহ মোট ১৫ জনকে আটক করা হয়েছে। তবে তদন্তের স্বার্থে এখন তাদের নাম বলা যাবে না বলে তিনি উল্লেখ করেন। এপর্যন্ত আটকের সংখ্যা ৪৪ জন। আটককৃতদের মহানগর গোয়েন্দা কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ ইসমাঈল হোসেন সিরাজী ভবনের সামনে মানববন্ধন করেছে শিক্ষক সমিতি। এতে বিশ্ববিদ্যায়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশগ্রহণ করেছে। পূর্বঘোষিত এই কর্মসূচি শেষ হয় পৌনে ১১টায়। এরপর বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যারিস রোডে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের উদ্যোগে একটি মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। এতেও একাত্ততা ঘোষণা করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির নেতাকর্মীরা।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি কামরুল ইসলাম মজুমদার জানান, অপরাধীদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় নিয়ে আসার জন্য আমরা প্রশাসনকে ১৫ দিনের সময় বেধে দিয়েছি। এই সময়ের মধ্যে যদি খুনিদের চিহ্নিত করে বিচার করা না হয় তাহলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি আরও কঠোর কর্মসূচি দেবে।

উল্লেখ্য, শনিবার দুপুর সাড়ে ৩টার দিকে নগরীর চৌদ্দপাই এলাকায় দুর্বৃত্তদের হামলায় গুরুতর আহত হন অধ্যাপক ড. শফিউল ইসলাম। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ হত্যার ঘটনায় রোববার রাবি রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. এন্তাজুল হক বাদী হয়ে অজ্ঞতনামা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।