ভারতে কারাবন্দি দুই নারীকে ধর্ষণ

বার্তাবাংলা ডেস্ক ::  ভারতের লম্পট পুরুষদের হাত কোনোমতেই যেন মুক্তি মিলছে না নারীদের। বাস, ট্রেন, হাসপাতাল এমনকি জেলে বন্দি অবস্থায়ও যৌন নিপীড়নের শিকার হচ্ছেন তারা। সম্প্রতি কারাগারে দুই নারী কয়েদিকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে হিন্দুস্তান টাইমস পত্রিকা জানিয়েছে। এই পাশবিক কাজে ব্যঙ্গালোরের প্রখ্যাত পারাপ্পা আগরাহারা সেন্ট্রাল জেলের কর্তৃপক্ষ সহায়তা করেছেন বলে অভিযোগ ওঠেছে।

ওই নারী কয়েদিদের লিখিত দুটি চিঠি কর্নাটক হাউকোর্টে পেশ করেছেন এক জুডিশিয়াল কর্মকর্তা। তিনি কারাগারের বিভিন্ন অনিয়ম নিয়ে তদন্ত করতে গিয়ে এই অভিনব ঘটনার খোঁজ পান। কানাড়া ভাষায় লিখিত অভিযোপত্রে বলা হয়েছে,কারাগার কর্তৃপক্ষের সহায়তায় সেখানকার দুই পুরুষ কয়েদি তাদের ধর্ষণ করেন। এ বাবদ জেল কর্তৃপক্ষকে ওই দুই পুরুষ বন্দী ৩শ ও ৫শ রুপি ঘুষ দিয়েছিলেন।

কর্নাটকের প্রধান বিচারপতিকেেউদ্দেশ্য করে লেখা ওই চিঠিতে কারাগারটিতে কয়েদিদের অবর্ণনীয় দুর্ভোগের কথা তুলে ধরা হয়েছে।

অভিযোগ রয়েছে, ভারতে প্রথম শ্রেণীর বন্দীরা কারাগারে নানা ধরণের বিশেষ সুবিধা পেয়ে থাকেন। বিশেষ সেলে বরাদ্দ পাওয়ার জন্য প্রতি মাসে তারা ২০ হাজার রুপি এডভান্স এবং ১০ হাজার রুপিভাড়া দিয়ে তাকেন।

তবে কারাগারের এডিশনাল ইন্সপেক্টর জেনারেল ভিএস রাজা এই অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন। তিনি বলেন, কারাগারের সর্বত্র সিসিটিভি ক্যামেরা মোতায়েন রয়েছে। ফলে সেখানে ধর্ষণের মত অপরাধ করা সহজ নয়। তিনি উল্টো অভিযোগ করে বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বঅ কর্মকর্তারা কারাগারের সুনাম নষ্ট করার জন্য উদ্দেশ্যপূর্ণভাবে এই অভিযোগ এনেছেন।

ব্যাঙ্গালোরের এই কারাগারটিতে অনেক হাই প্রোফাইল বন্দী রয়েছেন। এদের মধ্যে অন্যতম হলেন তামিলনাড়ুর সাবেক মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতা এবং কর্ণাটকের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদ্দুরাপ্পা ।