বার্তাবাংলা ডেস্ক »

Dating App

sobjiবার্তাবাংলা রিপোর্ট :: শীতের সবজিতে টইটুম্বুর কাঁচাবাজারগুলো। তাইতো সবজিতে স্বস্তি ফিরেছে নগরবাসীর। তবে ইলিশের চড়া দাম আর পেঁয়াজ-রসুনের ঝাঁজে অস্বস্তিতে ভুগছেন নিম্ম ও মধ্য আয়ের মানুষ।

শুক্রবার রাজধানীর কাঁচাবাজারগুলোতে ছিল উপচে পড়া ভিড়। এদিন রাজধানীর কারওয়ান বাজারসহ আশে-পাশের বেশকিছু খুচরা বাজার ঘুরে দেখা যায় এমন চিত্র। সবজির মধ্যে শশা ২০ টাকা, বেগুন ২০ থেকে ৩০ টাকা, মূলা ২০ থেকে ৩০ টাকা, চিচিংগা ২০ থেকে ২৫ টাকা, ঝিঙ্গা ২৫ থেকে ৩৫ টাকা, কাঁচা মরিচ ৩০ থেকে ৪০ টাকা, টমেটো ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া ফুলকপি প্রতিপিস ১০ থেকে ২০ টাকা, বাঁধাকপি ১০ থেকে ২০ টাকা, কলা হালি প্রতি ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, লাউ ১০ থেকে ৩০ টাকা, চাল কুমড়া ৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। যা ছিল গত সপ্তাহের তুলনায় ১০ থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত কম।

তবে নিত্যপণ্যের মধ্যে দাম বেড়েছে পেঁয়াজ-রসুনের। পেঁয়াজ ইন্ডিয়ান ৩৮ থেকে ৪০ টাকা, দেশি ৪০ থেকে ৪৫ টাকা। সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে বেড়েছে ৫ থেকে ৬ টাকা। রসুন ৯০ থেকে ১০০ টাকা। গত সপ্তাহে যা ছিল ৭০ থেকে ৮০ টাকা। এছাড়া আল ুকেজি প্রতি ২২ থেকে ২৪ টাকা। আদা বিক্রি হচ্ছে ১৩৫ থেকে ১৪০ টাকা কেজি দরে। কেজিপ্রতি ৩ থেকে ৪ টাকা কমেছে চিনি ও মসুর ডালের দাম। এদিন চিনি বিক্রি হয়েছে কেজি প্রতি ৪৩ টাকা এবং মসুর ডাল কেজি প্রতি ১০৬ টাকা ।

কথা হয় সবজি বিক্রেতা মো. হায়দার আলীর সঙ্গে। তিনি শীর্ষ নিউজকে জানান, বর্তমানে শীতের সবজিতে বাজার ছেঁয়ে গেছে। তাই সবজির দাম অনেকটা কম। তবে সিজন (মৌসুমি) শেষ হওয়াতে বেড়েছে পেঁয়াজ-রসুনের দাম।

এদিন ক্রেতাদের চোখে-মুখেও ছিল স্বস্তির ছাপ। ক্রেতা রবিউল ইসলাম জানালেন, অনেকদিন পরে কম দামে সবজি কিনলাম। তবে কারওয়ান বাজারের তুলনায় অন্যান্য খুচরা বাজারে এখনও সবজির দাম চড়া বলেও জানান তিনি।

অন্যদিকে, স্থীতিশীল রয়েছে চালের দাম। যা ৩ থেকে ৫ টাকা বেড়েছিল ঈদের পরেই। চালের মধ্যে মিনিকেট ৪৬ থেকে ৪৮ টাকা, আটাশ ৪০ থেকে ৪২ টাকা, স্বর্ণা ৩৫ থেকে ৩৬ টাকা, পারি ৩৮ টাকা, নাজিরশাল ৫২ থেকে ৫৮ টাকা।

চালের দাম কমবে কিনা জানতে চাইলে বরিশাল রাইস এজেন্সির স্বত্বাধিকারী ফোরকান হোসেন শীর্ষ নিউজকে জানান, পুরানো চালের দাম কমবে না। তবে বাজারে নতুন চাল আসলে দাম কিছুটা কমতে পারে। নাজিরশাল, কাটারিভোগ এবং চিনিগুড়া চাল শীঘ্রই বাজারে আসছে বলে জানান তিনি।

এদিকে, বেড়েছে মাছের দামও। যার মধ্যে ইলিশ বিক্রি হচ্ছে চড়া দামে। সপ্তাহের তুলনায় ইলিশের দাম বেড়েছে হালি প্রতি ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা।

এদিন প্রতিজোড়া ইলিশ বিক্রি হয়েছে ১২‘শ থেকে ১৪‘শ টাকা। যা গত সপ্তাহে ছিল ৯‘শ থেকে ১২‘শ টাকা। অন্যান্য মাছের মধ্যে কই ২০০ টাকা, শিং ৭০০ টাকা, রুই ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা, তেলাপিয়া ১৪০ টাকা কেজি প্রতি। মাংসের মধ্যে গরু ২৮০ থেকে ৩০০ টাকা, খাসি ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা, ব্রয়লার ১৩০ থেকে ১৪০ টাকা।

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »