৮ হাজার কোটি টাকার তালাক

বার্তাবাংলা ডেস্ক ::  স্ত্রীকে তালাক দিলে আইন অনুযায়ী তার প্রাপ্য বুঝিয়ে দিতে হয় স্বামীকে। না হলে তালাক কার্যকর হয় না, এমনকি স্বামীকে সাজা ভোগ করতেও হয় কখনো কখনো।

একটি তালাকের মূল্য হিসেবে স্ত্রী কত টাকা পেতে পারেন বা দাবি করতে পারেন, এর স্বাভাবিক হিসাবটা আন্দাজ করা যায় বৈকি। কিন্তু তালাক মূল্য যদি হয় ৮ হাজার কোটি টাকা, তবে তা কি আর স্বাভাবিক থাকে? কারো কারো ক্ষেত্রে তা স্বাভাবিক, দাবি আরো বেশি।

স্ত্রীকে তালাক বাবদ কন্টিনেনটাল রিসোর্স নামের যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্বখ্যাত তেল কোম্পানির মালিক হ্যারল্ড হ্যামকে গুণতে হচ্ছে এই ৮ হাজার কোটি টাকা। সেই সঙ্গে কিছু সম্পত্তি এবং একটি বাড়িও পাচ্ছেন তিনি। গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত তালাকমূল্য হিসেবে ওই পরিমাণ সম্পদ ও অর্থ দেওয়ার নির্দেশ দেন। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে এর চেয়ে বেশি টাকায় আগে কখনো তালাক নিষ্পত্তি হয়নি। অর্থাৎ তালাকের ইতিহাসে এটি বিরল একটি রেকর্ড।

হ্যারল্ড হামের স্ত্রী সু অ্যান হ্যাম এতে সন্তুষ্ট নন। তিনি দাবি করেছেন ধার্য তালাকমূল্যের কয়েক গুণ বেশি টাকা। ২৫ বছর সংসার করেছেন এই দম্পতি। সংসার জীবনে স্বামীর সব কিছুর সঙ্গে জড়িয়ে ছিলেন তিনি। এখন ছাড়াছাড়ি যখন হচ্ছেই, তখন ন্যায্য তালাকমূল্য চান তিনি।

সু অ্যান হ্যাম জানিয়েছেন, তার স্বামী হ্যারল্ড হ্যাম কন্টিনেনটাল রিসোর্সের ৬৮ শতাংশ শেয়ারের মালিক। যার বাজার মূল্য বর্তমানে প্রায় ১ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকার বেশি। সু অ্যান হ্যামের দাবি, তাকে তালাক দেওয়ার জন্য গত আগস্টে যখন আইনি প্রক্রিয়া শুরু হয়, তখন স্বামী হ্যারল্ড হ্যামের সম্পদের শেয়ারমূল্য ছিল প্রায় ১ লাখ ৪৭ হাজার কোটি টাকা। সেই হিসাব মোতাবেক তিনি তালাকমূল্য দাবি করেছেন।

এই দাবি নিয়ে আবারও আদালতে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন সু অ্যান হ্যাম। অর্থাৎ আদালতের নিষ্পত্তিমূলক রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি।  শেষ পর্যন্ত এই দম্পতির তালাকের মূল্য কত টাকায় দাঁড়ায়, তা-ই এখন দেখার বিষয়।