যুদ্ধাপরাধে অভিযুক্ত হতে পারে আইএস

বার্তাবাংলা ডেস্ক ::    ইরাকে ইসলামিক ষ্টেটের যোদ্ধারা যেসব কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে সেগুলো যুদ্ধাপরাধ এবং গণহত্যা হিসেবে বিবেচনা করা হতে পারে বলে হুঁশিয়ার করে  দিয়েছে জাতিসংঘ।

দেশটির ইয়াজিদি সম্প্রদায়ের ওপর ইসলামিক ষ্টেট জঙ্গিদের চালানো বর্বরতার প্রেক্ষাপটে এ হুশিয়ারি দেন সংস্থাটির মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান ইভান শিমোনোভিচ। তিনি বলেন ইসলামিক ষ্টেট জঙ্গিরা ন্যায়বিচার বলতে কেবল মানুষকে হত্যা করাকেই বোঝে।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান ইভান শিমোনোভিচ সপ্তাহব্যাপী ইরাক সফর শেষে যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে আসার পরই হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, সেখানে ইসলামিক ষ্টেটের কর্মকাণ্ড যুদ্ধাপরাধ এবং গণহত্যা হিসেবে বিবেচিত হতে পারে। ফলে আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী আইএসের বিচার হতে পারে। তিনি বলেন জঙ্গিরা ইয়াজিদি সম্প্রদায়ের লোকজনকে যে হারে হত্যা করেছে, সেটি গণহত্যার পর্যায়ে পড়ে। এছাড়া জঙ্গিরা ইয়াজিদি মেয়েদের যৌন-দাসত্ব করতেও বাধ্য করছে বলে অভিযোগ করেন শিমোনোভিচ।

ইরাকে ইসলামিক ষ্টেটের কর্মকাণ্ডের ওপর এক তথ্যানুসন্ধান মিশনে গিয়ে জঙ্গিদের বর্বরতার শিকার ইয়াজিদি সম্প্রদায়ের বহু লোকজনের সঙ্গে দেখা করেন শিমোনোভিচ। তিনি জানাচ্ছেন, সেখানে ধর্মান্তরিত হতে রাজি না হওয়ায় একই পরিবারের সব পুরুষ সদস্যকে হত্যা করা হয়েছে। এছাড়া যৌন-দাসত্বে বাধ্য করার পর পালিয়ে আসা বারো বছর বয়সী এককিশোরীর সঙ্গেও তিনি কথা বলেছেন শিমোনোভিচ।