ধর্মনিরপেক্ষতা আ.লীগের মুখোশ

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ ধর্মনিরপেক্ষতার মুখোশে ধর্মহীনতায় বিশ্বাস করে। তারা সকল ধর্মের উপর আঘাত করে।’

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউটে বিশিষ্ট হিন্দু ধর্মাবলম্বী ব্যক্তিদের সঙ্গে শুভেচ্চা বিনিময় করতে এসে এসব কথা বলেন তিনি। শুভ বিজয়া উপলক্ষে এ শুভেচ্চা বিনিময় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সবাইকে বিএনপির পতাকাতলে আসার আহ্বান জানিয়ে বেগম জিয়া আরও বলেন, ‘বিএনপি সম্প্রীতিতে বিশ্বাসী। এই সম্প্রতি সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে। বিএনপির সঙ্গে থাকলে বোঝা যাবে অন্যদলের সঙ্গে বিএনপির পার্থক্য।’

স্বাধীনতার পর হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সম্পত্তি দখল করা হয়েছে- এমন অভিযোগ করে বিএনপি চেয়ারপারসন আরও বলেন, ‘এখনো জবরদখল করা হচ্ছে। আওয়ামী লীগ এগুলো করে তার দায় বিএনপির উপর চাপাচ্ছে।’

খালেদা বলেন, ‘বিএনপি সরকার গঠন করলে তা হবে সকল দলের সরকার, সব ধর্মের মানুষের সরকার, জনগণের সরকার।’

বর্তমান সরকারকে খুনি আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, ‘দেশের সকল ধর্ম ও বর্ণের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ এই খুনি সরকারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।’

খালেদা জিয়া বলেন, ‘আওয়ামী লীগ দেশের বিভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের ওপর নির্যাতন করে বিএনপির ওপর দায় দেয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু পরে তদন্তে সরকারি দলের সম্পৃক্ত পাওয়া গেলেও তাদের বিচার করা হয় না।’

বিশ্বজিৎ হত্যার সঙ্গে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ জড়িত দাবি করে বেগম জিয়া বলেন, ‘নারায়াণগঞ্জের ৭ খুন চন্দন সরকার দেখে ফেলায় ক্ষমতাসীনরা তাকেও হত্যা করেছে।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি ক্ষমতায় গেলে সেটা কোনো দল বা ব্যক্তির সরকার হবে না। সেই সরকার হবে সকল দলের, সকল ধর্মের জনগণের সরকার।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য এম কে আনোয়ার, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ, ড. আব্দুল মঈন খান, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক হাবিব-উন-নবী- খান সোহেল, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক অ্যাড. গৌতম চক্রবর্তী, উপদেষ্টা অ্যাড. নিতাই রায় চৌধুরী, অর্পনা রায় প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এছাড়া রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, বরিশাল, সিলেট, চট্রগ্রাম, মানিকগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, নেত্রকোনা, টাংঙ্গাইল, কিশোরগঞ্জ, কুষ্টিয়া, মুন্সিগঞ্জ, নরসিংদী, বাগেরহাট ও ময়মনসিংহসহ সারাদেশের হিন্দু সম্প্রদারের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।