বিয়েতে রাজি না হওয়ায় মা ও মেয়েকে পুড়িয়ে হত্যা

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: মির্জাপুর উপজেলার সোহাগ পাড়া এলাকায় বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় মা ও তিন মেয়েকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে ছেলে পক্ষের লোকজন।

নিহতরা হলেন- ওই গ্রামের মজিবুর রহমানের স্ত্রী হাসনা বেগম (৩০)। তার মেয়ে মরিয়ম (১৪), মলি (০৪) ও মিম (০৬)।

মঙ্গলবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে। লাশ উদ্ধার করে মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায় বাংলামেইলকে জানান, সোমবার রাতে উপজেলার সোহাগ পাড়া এলাকার প্রবাসী মজিবরের স্ত্রী হাসনা বেগম ও তিন মেয়ে মরিয়ম, মিলি এবং মিম ঘুমিয়ে ছিল। এ সময় তারা ঘরের দরজা বাইরে থেকে বন্ধ করে রাত ৩টার পরে কোন এক সময়ে দুর্বৃত্তরা তার ঘরের জানালা দিয়ে ঘরের ভিতরে পেট্রোল ঢেলে আগুন দেয় কে বা কারা। মূহুর্ততের মধ্যেই আগুন ছড়িয়ে পরে। এতে আগুনে পুড়ে মারা যান একই পরিবারের ৪ জন।

পাশের বাড়ির বাহার উদ্দিনের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম দীর্ঘ দিন ধরে ওই পরিবারের বড় মেয়ে মরিয়মকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ছেলের পরিবারের লোকজন এ আগুন লাগিয়ে থাকতে পারে বলে পুলিশ ধারণা করছে।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে পেট্রোলের দুটি কন্টিনার উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে পুলিশ একজনকে আটক করেছে।

জাহাঙ্গীর আলমের বাড়ির সবাই পলাতক রয়েছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে কুমুদিনী হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।