‘ইনকারেক্ট’ ওবায়দুল কাদের

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের কাছ থেকে বাসে দিগুন ভাড়া আদায়ের প্রমাণ হাতেনাতে পেয়েও কোনো ব্যবস্থা নিলেন না ‘জনসেবায়’ মাঠ চষে বেড়ানো মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। উল্টো বাস মালিকদের বুলি আউড়িয়ে ভাড়া বৃদ্ধিকে সমর্থন করে গেলেন তিনি।

শুক্রবার রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল পরিদর্শনে গিয়ে জনগণকে এভাবেই হতাশ করেন সেতু ও সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত এই মন্ত্রী।

শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল পারিদর্শনে যান ওবায়দুল কাদের। দুটো বাসের যাতীদের সঙ্গে কথা বলার পর ঢাকা-কুমিল্লা রুটের তিষা এক্সক্লুসিভ এন্টারপ্রাইজের একটি বাসের যাত্রীদের কাছে গেলে তারা দ্বিগুনেরও বেশি ভাড়া নেয়ার অভিযোগ করেন মন্ত্রীর কাছে। হাতেনাতে প্রমাণও পান তিনি। কিন্তু কোনো ব্যবস্থা নেননি।

অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ার বিষয়ে সাংবাদিকরা মন্ত্রীকে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘কেউ যদি অতিরিক্ত ভাড়া নিয়ে থাকেন যাত্রীদের ভোগান্তিতে ফেলে থাকেন তবে পরবর্তী রিভিউ মিটিংয়ে তা মূল্যায়ন করা হবে এবং এসব বিষয়ে তাদের অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘পরিবহণ মালিকরা আমাদের কাছে অঙ্গিকার করেছে তারা কোথাও ভাড়া বাড়াবে না।’

তিষা পরিবহনে বেশি ভাড়া নেয়ার কথা বললে তিনি বলেন, ‘অতিরিক্ত ভাড়া নেয়া হচ্ছে কিনা তা মনিটরিং রুম দেখভাল করছে।’

এটি বন্ধ হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আই এম নট কারেক্ট। আমিতো ম্যাজিস্ট্রেট নই। আমার পাশে ম্যাজিস্ট্রেট থাকলে আমি তাকে আদেশ দিতাম ব্যবস্থা নেয়ার।’

এক পর্যায়ে ভাড়া বাড়ানোর পক্ষে যুক্তি দিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘মালিকরা বাসটি নিয়ে যাওয়ার সময় যাত্রী ভর্তি থাকে। কিন্তু আসরা সময় বাসটি পুরোপুরি খালি থাকে। এ কারণেই মালিকরা কিছু বেশি ভাড়া আদায় করছেন।’