লন্ডন ও কুয়েতে ৪ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: লন্ডন ও কুয়েতে দুটি পৃথক ঘটনায় চার বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছেন। এর মধ্যে লন্ডনে অবৈধভাবে অবস্থানের দায়ে গ্রেপ্তার হয়েছেন তিনজনকে।

আরব টাইমসের এক রিপোর্টে বলা হয়, কুয়েত সিটির আদনান হাসপাতালে কর্মরত এক বাংলাদেশিকে নাটকীয়ভাবে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। তাকে ধরতে পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ ফাঁদ পেতেছিল।

কুয়েতে গ্রেপ্তার হওয়া বাংলাদেশির বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি সেদেশের সরকারের ব্যবহৃত রাজস্ব স্ট্যাম্প কালোবাজারে বিক্রি করছিলেন।

ফারওয়ানিয়া প্রদেশ ভারপ্রাপ্ত নিরাপত্তা পরিচালক মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আল এনেজি গোপন সূত্রে খবর পায় ওই ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে রেভিনিউ স্ট্যাম্প বিক্রি করে আসছে। ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ে তিনি একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন। এ কমিটির একজন ছদ্মবেশে ওই ব্যক্তির কাছে গিয়ে স্ট্যাম্প কিনতে চাইলে তিনি তাতে সম্মত হন এবং স্ট্যাম্প বিক্রি করেন। এ কেনাবেচার সময় আগে থেকে ওঁৎপেতে থাকা টিমের সদস্যরা ওই বাংলাদেশিকে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করে। তার বিরুদ্ধে পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এদিকে লন্ডনের গ্রিমসডে টেলিগ্রাফ গত ২৭ সেপ্টেম্বর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ব্রিটেনের লাউথ এলাকায় দুটি ইন্ডিয়ান রেস্তোরাঁয় হোম অফিসের ইমিগ্রেশন এনফোর্সমেন্ট অফিসারদের একটি দল অভিযান চালিয়ে তিনজন বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করে। ইমিগ্রেশন কর্মকর্তারা অ্যাসওয়েল স্ট্রিটের রাজমহল এবং ইস্টগেটের বলিউড ফিউশন রেস্তোরাঁয় অভিযান চালিয়ে ওই তিন বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করে। এ গ্রেপ্তার অভিযানে হোম অফিসকে লিঙ্কনশায়ার পুলিশ সহায়তা দিয়েছে।

পত্রিকাটি গত সপ্তাহে আরেকটি রেস্তোরাঁ থেকে আরো দুজন বাংলাদেশি কর্মচারীকে গ্রেপ্তারের খবর দিয়েছিল।

পুলিশ নিশ্চিত হয়, ৪৬ বছর বয়স্ক বাংলাদেশি ২৯ ও ২২ বছর বয়স্ক ওই দুই বাংলাদেশির বলিউড ফিউশনে কাগজপত্র পরীক্ষা করে দেখতে পায় যে, তারা ইমিগ্রেশনের শর্ত লঙ্ঘন করে ওই রেস্তোরাঁয় কাজ করছিলেন। এ তিনজনকেই মুচলেকা নিয়ে জমিনে মুক্তি দেয়া হয়েছে। যদি প্রমাণিত হয় যে, যুক্তরাজ্যে তাদের অবস্থান বৈধ ছিল না, তাহলে তাদের বাংলাদেশে পুশব্যাক করা হবে।