চট্টগ্রামে দিনভর সংঘর্ষ : নিহত ৩ » Leading News Portal : BartaBangla.com

বার্তাবাংলা ডেস্ক »

chittagongচট্টগ্রাম ব্যুরো :: নগরীর ডবলমুরিং থানার দেওয়ানহাট মোড়ে পুলিশ ও জামায়াত-শিবিরের কর্মীদের মধ্যে আবারও সংঘর্ষে আফজাল (২৫) নামে আরও এক যুবক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও একজন গুরুতর আহত হয়েছেন।

এ নিয়ে দিনভর পুলিশ ও জামায়াত-শিবিরের সংঘর্ষে নগরীতে দুজন নিহত হল।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নগরীর দেওয়ানহাট মোড় থেকে দনারায়ে তকবির শ্লোগান দিয়ে একদল যুবক ঝটিকা মিছিল বের করে। তারা মিছিল নিয়ে ফায়ার সার্ভিসের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে একটি বাসে (চট্টমেট্রো-জ-১১-০৬০৮) আগুন দেয়। এছাড়া তারা আরও একটি বাস ভাংচুর করেন।

এসময় ঝটিকা মিছিল বের করা জামায়াত-শিবিরের কর্মীরা কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটান। এসময় গোলাগুলির ঘটনা ঘটে বলে প্রত্যক্ষদর্শী ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তাদের সূত্রে জানা গেছে।

সহিংসতায় আফজালসহ দুদজন গুরুতর আহত হন। আশংকাজনক অবস্থায় আফজালকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

আফজালের মারা যাবার খবরটি নিশ্চিত করেছেন চমেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়িতে দায়িত্বরত সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) পংকজ বড়ুয়া।

এছাড়া আহত অপরজনের অবস্থাও আশংকাজনক বলে জানিয়েছেন এএসআই পংকজ বড়ুয়া।

নিহত আফজাল নগরীর পাহাড়তলী থানার কর্ণেলহাট এলাকার নজির কমিশনারের বাড়ির আমির আলীর ছেলে।

এদিকে দেওয়ান হাটে সহিংসতার পর পুলিশ মিস্ত্রিপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুদজনকে আটক করেন। এরা হলেন, কামরুল হাসান (২০) ও মো.খোকন (২৩)।
নগর পুলিশের ডবলমুরিং জোনের সহকারী কমিশনার আরেফিন জুয়েল বলেন, সহিংসতার আশংকায় দেওয়ানহাট থেকে আগ্রাবাদ মোড় পর্যন্ত পুলিশ মোতায়েন ছিল। কিন্তু হরতাল সমর্থক জামায়াত-শিবিরের কর্মীরা অতর্কিত মিছিল বের করে। এসময় পুলিশ বাধা দিলে তারা মিছিল থেকে ইট, পাটকেল নিক্ষেপ করে।

পুলিশ তাদের ধাওয়া দিলে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। এ ঘটনায় একজন পথচারী আহত হয়েছিল। তাকে পুলিশের গাড়িতে করে হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর পাহাড়তলী থানার অলংকার মোড়ে পুলিশ ও জামায়াত-শিবিরের মধ্যে সংঘর্ষে একজন নিহত হয়।

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

আমি ফারজানা চৌধুরী তন্বী। লেখালিখি করি ফারজানা তন্বী নামে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর করার পর আজ প্রায় পাঁচ বছর ধরে লেখালিখির সঙ্গেই আছি। বার্তাবাংলা’য় কাজ করছি সিনিয়র রিপোর্টার হিসেবে। আমার বিশেষ আগ্রহের ক্ষেত্র ফিচার, প্রযুক্তি আর লাইফস্টাইল। ভালো লাগে ভ্রমণ, বইপড়া, বাগান করা আর ইন্টারনেট নিয়ে পড়ে থাকা :)

মন্তব্য করুন »