অসচেতনতার কারণে নারীরা নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের ঢাকা মহানগরীর সহ সভাপতি সারাবান তহুরা বলেন, ‘নারীর এই অসহায় আর্তনাদ যেন আর শুনতে না হয়। সকলে সচেতন হলেই সম্ভব নারীর নিরাপত্তা দেয়া।’

সোমবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক সমাবেশ থেকে তিনি এ কথা বলেন।

কিশোরীদের আত্মহত্যা, বাল্য বিবাহ, ধর্ষণ, গণধর্ষণ, ছাত্রীদের স্কুলে যাওয়া আশার পথে উত্ত্যক্ত করাসহ নারীর বহুমাত্রিক শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন বন্ধের দাবিতে এ সমাবেশের আয়োজন করে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ ঢাকা মহানগর।

সমাবেশে সারাবান তহুরা আরো বলেন, ‘যদি নারী নির্যাতনকারীদের শাস্তি নিশ্চিত করা হতো, তাহলে আর কেউ এ ধরনের অপরাধ করতো না। এখন সবার ধারণা এ ধরনের অপরাধ করলে কিছুই হয় না। কারণ এ ধরনের অপরাধ সংঘটিত করে অপরাধীরা রাজনৈতিক আশ্রয়ে চলে যায়। যার ফলে পুলিশও তাদের কিছু বলে না।’

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডা. মালেকা বানু বলেন, ‘অসচেতনতার কারণে এখন ঢাকার পথে ঘাটে নারীরা নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।’

বাস থেকে শুরু করে কর্মস্থলেও নারীরা নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন বলেও দাবি করেন তিনি।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের ঢাকা মহানগরের সভানেত্রী মাহাতাবুন নেসার সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন সংগঠনটির আন্দোলন সম্পাদক কাজী সুফিয়া আখতার, সাংগঠনিকর সম্পাদক উম্মে সালমা বেগম, অ্যাডভোকেসি অ্যান্ড লবি লিগ্যাল এইড বিভাগের পরিচালক অ্যাডভোকেট মাকসুদা আক্তার লাইলি প্রমুখ।