চট্টগ্রামে আয়কর মেলা থেকে ৭ হাজার কোটি টাকা আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: চট্টগ্রামে আয়কর মেলার মাধ্যমে চারটি কর অঞ্চল থেকে ৭ হাজার ৮০০ কোটি টাকা কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে চট্টগ্রাম আয়কর বিভাগ। চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-১ এর কর কমিশনার দবিরউদ্দিন এ তথ্য জানিয়েছেন। আগামী মঙ্গলবার চট্টগ্রামের আগ্রাবাদস্থ সরকারি কার্যভবন-২-এর মাঠে সপ্তাহব্যাপী এই আয়কর মেলা শুরু হবে। মেলার উদ্বোধন করবেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন। চট্টগ্রাম আয়কর মেলা উদ্‌যাপন কমিটির আহ্বায়ক এবং চট্টগ্রাম অঞ্চলের কর কমিশনার-১ মো. দবির উদ্দিন জানান, সাধারণ জনগণকে আয়কর প্রদানে উৎসাহিত করা এবং করদাতাদের ই-টিআইএনের আওতায় আনতে চট্টগ্রামে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলার আয়োজন করা হয়েছে। এই আয়কর মেলা থেকে চট্টগ্রামের চার কর অঞ্চলের আওতাধীন ৮৮টি সার্কেলের বুথের মাধ্যমে ৭ হাজার ৮০০ কোটি টাকা কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-১-এর লক্ষ্যমাত্রা ৪ হাজার ২০০ কোটি টাকা, কর অঞ্চল-২-এর লক্ষ্যমাত্রা ১ হাজার ৫৫০ কোটি টাকা, কর অঞ্চল-৩ লক্ষ্যমাত্রা ১ হাজার ২৫০ কোটি টাকা এবং কর অঞ্চল-৪-এর লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৮০০ কোটি টাকা। গত ২০১৩-১৪ অর্থবছরে চট্টগ্রামের চারটি কর অঞ্চল মিলে আয়কর আদায় হয়েছিল ৬ হাজার ৩৯৩ কোটি টাকা। আয়কর মেলায় করদাতারা কী কী সেবা পাবেন, এমন প্রশ্নের জবাবে কর কমিশনার দবির উদ্দিন জানান, মেলায় আয়করদাতারা তাদের ২০১৪-১৫ অর্থবছরের করবর্ষের আয়কর রিটার্ন জমা দিতে পারবেন। করদাতাদের কর তথ্য ও সব ধরনের সেবা পেতে আয়কর মেলায় এখানকার চারটি কর অঞ্চলের সবগুলো সার্কেলের জন্য পৃথক বুথ স্থাপন করা হবে। শীতাতপনিয়ন্ত্রিত এ মেলায় ই-টিআইএন রেজিস্ট্রেশন ও বর্তমান করদাতারা রি-রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। মেলায় নারী, প্রতিবন্ধী ও প্রবীণ করদাতাদের জন্য পৃথক কাউন্টার থাকবে। করদাতারা মেলায় স্থাপিত সোনালী ও জনতা ব্যাংকের বুথে তাদের আয়কর জমা দিতে পারবেন। করদাতাদের রিটার্ন পূরণে সহায়তা করার জন্য মেলায় হেল্প ডেস্ক থাকবে। ১৫ সেপ্টেম্বর সকালে শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে আয়কর দিবসের কার্যক্রম শুরু হবে। এরপর ব্যক্তি পর্যায়ে সর্বোচ্চ ও দীর্ঘমেয়াদি করদাতাদের সম্মাননা অনুষ্ঠান হবে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত আয়কর মেলা চলবে।