পাকিস্তানের রাজনৈতিক অচলাবস্থা কাটানোর প্রচেষ্টা শুরু

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: কয়েক সপ্তাহ ধরে চলতে থাকা পাকিস্তানের রাজনৈতিক অচলাবস্থা কাটানোর জন্য নতুন করে রাজনৈতিক প্রচেষ্টা শুরু হয়েছে। চলমান আন্দোলনের প্রধান নেতা ইমরান খান এবং অপর নেতা ডা. তাহরুল কাদরি আলোচনায় বসতে রাজি হয়েছেন।

দেশটির রাজনৈতিক সমঝোতার এ উদ্যোগে আশার আলো দেখছেন পাকিস্তানিরা। অচলাবস্থা নিরসনে দেশটির বিরোধীদলগুলোর সমন্বয়ে গঠিত হয়েছে গ্র্যান্ড অপজিশন জিরগা যার প্রধান হচ্ছেন পাকিস্তান জামায়াতে ইসলামির আমির সিরাজুল হক। বুধবার স্থানীয় সময় বিকেলে পিটিআই এবং পিএটি’র নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন তিনি।

সিরাজুল হক জানান, দেশের গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে এবং চলমান রাজনৈতিক সংকটে পুরো জাতি বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছে।

এর আগে, মঙ্গলবার পাকিস্তানের জাতীয় সংসদে দুই কক্ষের যৌথ অধিবেশনে বেশিরভাগ বিরোধীদল প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের প্রতি সমর্থন দিয়েছে এবং ইমরান খান ও তাহিরুল কাদরির চলমান আন্দোলনের তীব্র সমালোচনা করেছেন। ধারণা করা হচ্ছে- জাতীয় সংসদের বিশেষ অধিবেশন এবং সরকারের পক্ষে বিরোধীদলগুলোর অবস্থানের কারণে চলমান আন্দোলন নিয়ে এক ধরনের চাপে পড়েছেন ইমরান খান। পাকিস্তানের সামরিক বাহিনী নিয়ে যেসব জল্পনা চলছিল তাতেও ভাটা পড়বে বলে মনে করা হচ্ছে।

এ সম্পর্কে পিপিপি সিনেটর রেহমান মালিক বলেন, ইমরান ও কাদরি আলোচনায় রাজি হয়েছেন তবে তার অর্থ এই নয় যে, তারা দুর্বল হয়ে পড়েছেন কিংবা তাদের আন্দোলন কর্মসূচি থেকে পিছিয়ে গেছেন। তবে বুধবারের আলোচনা থেকে ভালো ফলাফল বেরিয়ে আসবে বলে আশা করেন রেহমান মালিক।

এদিকে, ইমরান-কাদরি যাতে দেশ ত্যাগ করতে না পারেন সেজন্য এক্সিট কন্ট্রোল লিস্টে তাদের নাম অন্তর্ভুক্ত করার জন্য আদালতে আবেদন করেছেন নওয়াজ শরীফের নেতৃত্বাধীন মুসলিম লীগের নেতা আশরাফ গুজ্জার।