বিশ্বকাপ নিয়ে শঙ্কায় পাকিস্তান

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: ১৯৯২ সালে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে যৌথভাবে আয়োজিত বিশ্বকাপ জিতেছিল ইমরান খানের পাকিস্তান। এরপর ক্রিকেটের সর্বোচ্চ আসরটিতে নিজেদের হারিয়ে খুঁজছে তারা।

‘আনপ্রেডিকট্যাবল’ খেতাবটি ভালোভাবেই সেটে আছে তাদের গায়ে। কূলে এসে তরী ভেড়ানোর অভ্যাসটা মোটেই পরিবর্তন করতে পারছে না এশিয়ান এই পরাশক্তি।

আসন্ন অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপের বাকি আর মাত্র ৫ মাস। তার আগে এ কেমন বেহাল দশা তাদের? শ্রীলঙ্কার কাছে টেস্ট ও ওয়ানডে সিরিজ হারায় পাকিস্তানের বিশ্বকাপ সম্ভাবনা নিয়ে শঙ্কায় পড়েছেন দেশটির প্রাক্তন ক্রিকেটাররা।

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ। এরপর ওয়ানডে সিরিজ খুইয়েছে ২-১ ব্যবধানে। এই সিরিজটাকে দুদলই নিয়েছিল বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবে। শ্রীলঙ্কা কাজের কাজটি করে নিয়েছে। অপরদিকে, পাকিস্তানের ব্যাটিংয়ের দৈন্যদশা দেখে চিন্তিত প্রাক্তনরা।

এদিকে মিসবাহর নেতৃত্বের দিকে আঙুল তুলেছেন আরেক প্রাক্তন অধিনায়ক মোহাম্মদ ইউসুফ, ‘অধিনায়ক হিসেবে মিসবাহকে রেখে দিলে আপনি ফলাফলে উন্নতি আশা করতে পারবেন না। চার বছর ধরে সে দলের অধিনায়ক। অথচ এখনো দলের মধ্যে একটা উপযুক্ত সমন্বয় তৈরি করতে পারেনি। আমার মনে হয় অধিনায়ক হিসেবে আফ্রিদিকে আমাদের বেছে নেওয়া উচিত। কারণ সে আক্রমণাত্মক এবং দলকে আরো ভালোভাবে নেতৃত্ব দিতে পারবে।’

পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক রশিদ লতিফ বলেন, ‘বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবে খেলা সর্বশেষ দুটো সিরিজে বুড়ো খেলোয়াড়দের ওপর আস্থা রেখেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। তরুণ খেলোয়াড়দের ওপর তারা বিশ্বাস রাখতে পারেনি। সে জন্যই আমাদের পারফরম্যান্সের গ্রাফ নিচের দিকে নামছে।’

সুতরাং পাকিস্তানকে ব্যাটিংয়ে নজর দিতে হবে। ফিল্ডিংয়ে করতে আরো উন্নতি। নইলে নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ায় লজ্জার মুখে পড়তে হবে তাদের।