নেপালে ৩ বাংলাদেশি আটক

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: নেপাল পুলিশের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা ব্যুরো (সিআইবি) গতকাল দেশটির রাজধানী কাঠমান্ডুর দুইটি পৃথক স্থানে অবস্থিত অবৈধ ভিওআইপি কলসেন্টারে অভিযান চালিয়ে ৩ বাংলাদেশী নাগরিককে আটক করেছে। এই খবর দিয়েছে নেপালের হিমালয়া নিউজ সার্ভিস। অবৈধ ভিওআইপি ব্যাবসার সাথে জড়িতদের ধরতে ২০০৯ সাল থেকে শুরু হওয়া সিআইবি’র ‘অপারেশন ভয়েস ফঙে’র অধীনে এটি ৬৭তম অভিযান। সিআইবি’র কর্মকর্তা সিতারাম রিজাল বলেছেন, বিভিন্ন জায়গা ভাড়া নিয়ে অবৈধ ভিওআইপি কলসেন্টার পরিচালনার অভিযোগে আটককৃত বাংলাদেশীরা হলেন, মোহাম্মদ হাসান ইকবাল (২৫), নয়ন (২৬) ও এ কে এম ফজলে (৩৬)। একই সাথে সিআইপি কর্মকর্তারা এই কাজে ব্যাবহৃত বিশাল পরিমাণে যন্ত্রপাতিও আটক করেছে। পুলিশ কর্মকর্তা সিতারাম আরও জানান, এই অবৈধ কালোবাজারীরা বাংলাদেশ ও বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলে কাজ করে। নেপাল পুলিশ এদের চিহ্নিত করেছে। তাদের ধরে বিচারের আওতায় আনার জন্য পুলিশ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিচ্ছে। এখন পর্যন্ত নেপাল পুলিশ এই অবৈধ ব্যাবসার সাথে জড়িত ১২৬ জনকে আটক করেছে, যাদের মধ্যে ৩৩ জন বিদেশী। আর বিদেশীদের মধ্যে সর্বোচ্চ ২৪ জনই বাংলাদেশী। বাকীদের মধ্যে ভারতীয় ৬ জন ও চীনা নাগরিক ৩ জন। তবে পুলিশ দাবি করছে, চীনা কিছু নাগরিকই দক্ষিণ এশিয়া জুড়ে এই অবৈধ কর্মকান্ডের মাস্টারমাইন্ড। এই কার্যক্রম তার প্রথমে শুরু করেছিল বাংলাদেশে। ২০০৭ সালে বাংলাদেশ এই হোতাদের বিরুদ্ধে ব্যাপক আকারে অভিযান পরিচালনা করলে, তারা নেপালে এসে নিজেদের অবৈধ কার্যক্রম চালানো শুরু করে। এর মাধ্যেমে তারা আন্তর্জাতিক কল আদানপ্রদান করে বিপুল পরিমান সরকারী রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছে। নেপালে ১৯৯৭ সালে প্রণিত আইনানুযায়ী এই সংক্রান্ত অপরাধে জড়িত ব্যাক্তি ৫ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন।