ফেনী-খাগড়াছড়ি সড়ক যোগাযোগ বন্ধের আশংঙ্কা

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: যে কোন মুহুর্তে বন্ধ হয়ে যেতে খাগড়াছড়ির-ফেনীর সড়ক যোগাযোগ। ঘটে যেতে পারে মারাতœক প্রাণহানি। এ সড়কের সবকটি বেইলী ব্রিজের অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ ও মাত্রাতিরিক্ত ওজন নিয়ে যান চলাচলের কারণে এমনটাই আশংকা প্রকাশ করছেন যানবাহন কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয়রা।
জানা যায়, চট্টগ্রাম জেলার মিরসরাইয়ের বারইয়ারহাট-খাগড়াছড়ির ৯২কি.মি. সড়কে রয়েছে ১০টি বেইলি ব্রিজ। দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় বর্তমানে এসব ব্রিজ মারাতœকভাবে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। এরমধ্যে করেরহাটে-৩টি, বালুটিলায়-২টি, তুলাতলী, ভাঙ্গা টাওয়ার, কয়লা বাজার, বাগান বাজারে ১টি করে ৯টি বেইলি সেতু। কিছু সেতু রয়েছে খুবই উঁচুতে হওয়ায় দুর্ঘটনায় কবলে পড়ে ঘটতে পাড়ে প্রাণহানির ট্রাজেডি। ২০০৭ সালে একটি যাত্রীবাহি বাস লোহারপুর থেকে প্রায় দু’শ ফুট নিচে পড়ে মৃত্যুঘটে ১২জনের। এসময় সড়ক জনপথ থেকে ব্রিজের সম্মুখে ৫টনের অধিক ওজনের বেশী মালামাল পরিবহণে নির্দেশ দিলেও মানছে না কেউ।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নড়বড়ে এ সব ব্রিজ দিয়ে প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছে হাজার হাজার যাত্রী। ছোট-বড় কয়েক হাজার গাড়ি ঝুঁকি নিয়ে বহন করে যাচ্ছে কোটি কোটি টাকার কাঠ, বাঁশ, বালিসহ বিভিন্ন ধরণের পণ্য। বিশেষ করে লোহারপুর ও কয়লা বেইলী ব্রিজ যে কোন মুহুর্তে ভেঙ্গে পড়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ও প্রাণহানি হওয়ার আশংকা করছে স্থানীয়রা। স্থানীয়রা এসব ঝুঁকিপূর্ণ বেইলী ব্রিজগুলো সংস্কার করার জন্য কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।
মিরসরাই নৃ-তাত্ত্বিক সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক হরি ত্রিপুরা জানান, এলাকার শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন অজানা আতংক নিয়েই যাতায়াত করছে এ সড়ক দিয়ে।
চট্টগ্রাম বিভাগীয় সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকোশলী রানা প্রিয় বড়ুয়া বারইয়ারহাট-খাগড়াছড়ির সড়কের বেইলি সেতুর দুরাবস্থার কথা স্বীকার করে বলেন, উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা পাওয়া গেলে সেতুগুলোর পুন:নির্মাণের কাজ শুরু করা হবে।