তিস্তার পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে তিস্তা ও ব্রহ্মপুত্র নদীতে পানি বৃদ্ধির সঙ্গে দেখা দিয়েছে তীব্র ভাঙ্গন। গত ৮দিনে ভারি বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে নতুন নতুন এলাকা বন্যায় প্লাবিত হয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, ২৪ ঘণ্টায় তিস্তা নদীর পানি বিপদ সীমার ৫ সে.মি ও ব্রহ্মপুত্র নদীর পানি ৯ সে.মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় কাপাসিয়া ইউনিয়নের কাজিয়ার চর, বাদামের চর, ভাটি কাপাসিয়া, পূর্ব লালচামার, উজান বুড়াইল, ভাটি বুড়াইল, এলাকার প্রত্যন্ত অঞ্চলসহ সুন্দরগঞ্জের ৭ ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছে।

সেই সঙ্গে ভাঙ্গনে হুমকিরমুখে পড়েছে কাজিয়ার চরের আশ্রয়ণ প্রকল্প, ভাটি কাপাসিয়া, পূর্ব লালচামার, কঞ্চিবাড়ি, ছয়ঘড়িয়া, চণ্ডিপুরের বোচাগাড়ি শ্রীপুর, হরিপুর, কাশিম বাজারের নিকট বন্যা নিয়ন্ত্রণ বেড়িবাঁধসহ ৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ২টি বাজার। ভাটি কাপসিয়া, লালচামার ও হাজারীর হাট এলাকায় নদী ভাঙ্গন আরও তীব্র আকার ধারণ করেছে।

প্রতিদিনই ৮/১০টি করে পরিবার নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে এ বর্ষা মৌসুমে সহস্রাধিক পরিবার ভিটে-মাটি, বসতবাড়ি হারিয়ে নিঃস্ব হয়েছে। ভাঙ্গন ঠেকানোর মতো কোনো পদক্ষেপ এখন পর্যন্ত নেয়া হয়নি।