মালিক-শ্রমিককে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: পোশাক খাতের রপ্তানি প্রবৃদ্ধি ধরে রাখার জন্য মালিক-শ্রমিককে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

সোমবার ঢাকায় বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরামের সহযোগিতায় বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট আয়োজিত ‘অর্থনীতি বিষয়ক রিপোর্টিং কর্মশালা’র সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বাণিজ্যমন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘বাংলাদেশের অর্থনীতি এগিয়ে যাচ্ছে। আগামী কিছুদিনের মধ্যে পৃথিবীর মধ্যে যে পাঁচটি দেশ অর্থনৈতিক সফলতা লাভ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ তার মধ্যে একটি।’

দেশের এ অর্থনীতির সফলতার জন্য তৈরি পোশাক খাতের অবদান অনেক উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমানে দেশের রপ্তানি ৩০ বিলিয়নের বেশি, ব্যাংকে রিজার্ভ ২২ বিলিয়নের বেশি এবং রেমিটেন্স ১৫ বিলিয়নের বেশি। দেশের অর্থনীতি বিগত যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি শক্তিশালী। এজন্য দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির অগ্রযাত্রা ধরে রাখতে তৈরি পোশাক খাতের মালিক ও শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করে যেতে হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ পৃথিবীর মধ্যে দ্বিতীয় বৃহত্তম তৈরি পোশাক রপ্তানিকারক দেশ। দেশে-বিদেশে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে চক্রান্ত চলছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকলকে সজাগ থাকতে হবে। গত ঈদ উল ফিতরের আগে ও পরে সরকার বিশেষ উদ্যোগ নিয়ে তৈরি পোশাক খাতের সকল শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা প্রদানের উদ্যোগ নিয়েছিল। সরকার এখাতের সুষ্ঠু ও কর্মবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করতে আন্তরিকতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে।’

এ সময় তোফায়েল আহমেদ জিএসপি বিষয়ে বলেন, ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সে দেশে বাংলাদেশের জিএসপি সুবিধা স্থগিত করেছে। এরপরও সেদেশে বাংলাদেশের পণ্যের রপ্তানি বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে পৃথিবীর কোন দেশের জন্য জিএসপি সুবিধা নেই। সেখানে পুনরায় জিএসপি সুবিধা চালু হলে বাংলাদেশের না পাবার কোন কারণ নেই।’

তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের জিএসপি সুবিধা চালুর জন্য যেসকল শর্ত দিয়েছে তার বেশির ভাগই পূরণ করা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। তিনি বলেন, ‘অবশিষ্টগুলো পূরণের প্রক্রিয়া চলছে। কারণ এগুলো পূরণ সময় সাপেক্ষ বিষয়। এরপরও সেখানে জিএসপি সুবিধা চালু হলে যদি বাংলাদেশকে তা দেয়া না হয় তবে তা হবে রাজনৈতিক কারণ।’

বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটেরর মহাপরিচালক মো. শাহ আলমগীরের সভপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি সুলতান মাহমুদ এবং সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান।