প্রধানমন্ত্রীর কথার মূল্য নেই

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর সভাপতি কামাল লোহানী বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ত্বকী হত্যার বিচার করার প্রতিশ্রুতি দিলেও এর বিচার করেননি। এতে প্রমাণিত হয়, তার কথার কোনো মূল্য নেই।’

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের উদ্যোগে ‘ত্বকী হত্যা : বিচার প্রক্রিয়ায় রাষ্ট্রের ভূমিকা সুশাসন ও গণতন্ত্রের অন্তরায়’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি এ মন্তব্য করেন।

কামাল লোহানী বলেন, ‘সংসদে শামীম ওসমানের পরিবারের পক্ষ নেয়ায় শেখ হাসিনার প্রধানমন্ত্রিত্ব চলে যাওয়ার কথা। কিন্তু ক্ষমতার জোরেই তিনি সরকারে টিকে আছেন।’

তিনি বলেন, ‘ত্বকী হত্যাকাণ্ডের পরে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, আজ হোক আর কাল হোক এর বিচার হবে। কিন্তু দেড় বছর অতিবাহিত হলেও আজ পর্যন্ত সে বিচার হয়নি। এতে প্রমাণিত হলো প্রধানমন্ত্রীর কথার কোনো মূল্য নেই। তাই সকল হত্যাকাণ্ডের বিচার পেতে ত্বকী মঞ্চের আন্দোলনকে গণ-আন্দোলনে রূপ দিতে হবে।’

ত্বকীর বাবা নারায়ণগঞ্জে গণজাগরণ মঞ্চের উদ্যোক্তা রফিউর রাব্বি বলেন, ‘খুনিদের বাঁচাতে সরকার সব ধরনের ব্যবস্থা নিচ্ছে। এ মামলার শুধু তদন্তকারীরা নয়, প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে দেশের সকল জনগণ জানে ত্বকীকে কত নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে।’

সরকারের কাছে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, ‘সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের পর সরকারের মন্ত্রীরা বলেছিল কারো বেডরুম পাহারা দেয়ার দায়িত্ব সরকারের নয়। তাহলে আমাদের বেডরুম কি স্বাধীন বাংলার বাইরে? তাছাড়া ত্বকীকে তো বেডরুমে নয়, রাস্তায় হত্যা করা হয়েছে। এর দায়িত্ব কে নেবে?’

ক্ষমতায় টিকে থাকতে বর্তমান শাসক ঘাতকদের পক্ষাবলম্বন করছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘সরকার মনে করছে ক্ষমতায় টিকতে জনগণ নয়, দরকার ঘাতক শ্রেণীর সমর্থন।’

বাসদ নেতা খালিকুজ্জামান বলেন, ‘বাংলার মানুষের মনে আগুন আছে। একটি স্বাধীন দেশ এভাবে বেশিদিন চলতে পারে না। অচিরেই রাষ্ট্র ব্যবস্থার পরিবর্তন হবে।’

শিক্ষাবিদ অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশে করে বলেন, ‘শুধু একটি পরিবারের নয়, দেশের ১৬ কোটি মানুষের পাশে আপনার থাকার কথা। কিন্তু শামীম ওসমানের পরিবারের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়ে আপনি দায়িত্বের ব্যত্যয়
ঘটিয়েছেন।’

মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরের ট্রাস্টি ড. সারোয়ার আলী বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জকে একটি পরিবার শাসন করছে যার বিরুদ্ধে কথা বললে তাদের নিশ্চিহ্ন করে দেয়া হয়। তারপরও রাষ্ট্রপ্রধান পরিবারটির পক্ষ নিচ্ছে। রাজনীতি ও প্রশাসনের সর্বত্রই দুষ্টচক্র গ্রাস করে ফেলেছে। গডফাদার শুধু নারায়ণগঞ্জে নয়, সারা দেশেই গডফাদারে ভরে গেছে।’

‘প্রধানমন্ত্রীর আঁচলে আবৃত বিচারকরা কেন সুষ্ঠু বিচার করছে না’ এমন প্রশ্ন রেখে শিক্ষাবিদ ড. সরফুদ্দিন বলেন, ‘বিচার না করে আপানারা জনগণকে জাগিয়ে দিচ্ছেন। এর পরিণতি ঘটবে রাষ্ট্রক্ষমতা পরিবর্তনের মধ্যদিয়ে।’

রাফিউর রাব্বির সভাপতিত্বে আলোচনায় আরও অংশ নেন অধ্যাপক এম এম আকাশ, অধ্যাপক আনু মোহাম্মদ, অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।