দশ বছর পর জানা গেল স্বামী-স্ত্রী আসলে ভাই-বোন

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: দশ বছর একই সঙ্গে ঘর করছেন ব্রাজিলিয়ান এক দম্পতি। তাঁদের একটি ছয় বছরের মেয়েও রয়েছে। কিন্তু তাঁদের সুখের জীবনে একটাই অভাব ছিল। ছোটবেলায় হারিয়ে যাওয়া তাঁদের মায়ের। সেই মাকে খুঁজতে গিয়ে দেখল তাঁদের দুজনের মা একজনই।বিবাহিত জীবনে আদ্রিয়ানা ও লিনার্ডো কখনই এক অপরের পদবী জিজ্ঞাসা করেননি। লিনার্ডো তাঁর মায়ের নাম জানতেন। আট বছর বয়সে তাঁকে ছেড়ে চলে যান লিনার্ডোর মা মারিয়া। পালিত মায়ের কাছে তিনি মানুষ হন। অন্যদিকে আদ্রিয়ানার ক্ষেত্রে একই ঘটনা ঘটে। মাত্র এক বছর বয়সে মাকে হারান। তাঁর বাবার কাছে মানুষ হন। দু’জনে মায়ের নাম জানা সত্ত্বেও ভাবতেন ব্রাজিলে ‘মারিয়া’ নামে দুজন মানুষ থাকতে পারে। অতএব এবিষয় নিয়ে তাঁরা কোনও দিন ভাবেননি।কিন্তু ব্রাজিলিয়ান রেডিওর স্টেশন ‘গ্লোবো’ তাঁদের জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়। এই রেডিওর বেশ জনপ্রিয় অনুষ্ঠান হারিয়ে যাওয়া সম্পর্ক নিয়ে ‘দ্য টাইম ইজ নাও’ অনুষ্ঠানে আদ্রিয়ানা খোঁজ পায় তাঁর মায়ের। আবেগে বিহ্বল পড়ে আদ্রিয়ানা। মায়ের সঙ্গে অনেক আলাপচারিতার পর মারিয়া জানান তাঁর আরও এক সন্তান লিনার্ডোর কথা। মায়ের মুখে লিনার্ডোর সমস্ত কথা শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন। তিনি ভাবতেই পারচ্ছেন না তার স্বামী ছোটোবেলায় হারিয়ে যাওয়া ভাই।এই ঘটনায় আমরা যতই চমকে যাইনি কেন বিজ্ঞানীর বলেন, এই ঘটনা খুব একটা বিরল নয়। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, প্রতিবছর অনেক মানুষ অজান্তে ঘনিষ্ঠ হয় কিন্তু দেখা যায় তাঁরা কোনও না কোনও রক্তের সম্পর্কে জড়িয়ে রয়েছেন। একে মনোবিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয় ‘জেনেটিক সেক্সুয়াল অ্যাট্রাকশন’।