শক্তি-সাহস কোনটাই নেই বিএনপির

বার্তাবাংলা ডেস্ক::আন্দোলন করতে যে শক্তি-সাহসের প্রয়োজন বিএনপির কোনটাই নেই বলে মন্তব্য করেছেন ত্রাণ ও দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ বটগাছ, কলাগাছ না- যে ঠেলা দিলেই পড়ে যাবে। ষড়যন্ত্র করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারাকে বাধাগ্রস্ত করতে পারবেন না। আন্দোলনের কথা বলে কোন লাভ নেই। আন্দোলন করতে যে শক্তি-সাহসের প্রয়োজন আপনাদের কোনটাই নাই। আজ শুক্রবার রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমীর জাতীয় সংগীত ও নৃত্যকলা মিলনায়তনে দেশরত্ন পরিষদ আয়োজিত ‘বিএনপি-জামায়াতের কূটনৈতিক অপতৎপরতা : বাংলাদেশের উন্নয়নে অন্তরায়’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী এ কথা বলেন।

সংগঠনের সভাপতি চিত্ত রঞ্জন দাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরও বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুকুল চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবদুল হক সবুজ প্রমুখ।

ঈদের পর বিএনপির আন্দোলনের হুমকির জবাবে মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া বলছেন, ঈদের পর সরকার পতনের আন্দোলন করবেন। এটা তাকে দিয়ে সম্ভব নয়। তিনি (খালেদা) আন্দোলনের হুমকি দেন, তার সঙ্গে এখন কেউ নেই। তার সঙ্গে আছে শুধু নিজের ছায়া।

তিনি বলেন, আগে যেমন মুসলিম লীগ নামে একটা দল ছিল, এখন মুসলীম লীগ নামের কোন দল নেই, তেমনি ঈদের পরের তাদেও তথাকথিত আন্দোলনের পর বিএনপি নামের কোন দল এ দেশে থাকবে না।

ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, দেশে শয়তানের আছর লেগেছে। ঈদের পর দেশ থেকে শয়তান তাড়াতে হবে।

বাজেট নিয়ে সমালোচনার জবাবে তিনি বলেন, যারা রাতের ১২টার পর বড় বড় চায়ের কাপ নিয়ে টক-শোতে কথা বলেন, তারাই বাজেটকে উচ্চাভিলাষী বলেন। অথচ বাজেট ঘোষণার পর নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বেড়েছে, দেশের মানুষ এমন কথা বলেন নি। তারা এইগুলো চোখে দেখেন না। প্রধানমন্ত্রী চীনে যান, জাপান যান, সেখান থেকে বাংলাদেশের জন্য সহযোগিতা নিয়ে আসেন-তা কী তাদের চোখে পড়ে না?

সাম্প্রতিক বিএনপির সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমানের দেওয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী বলেন, যে মুক্তিযুদ্ধ দেখে নি-সে ইতিহাসের কি জানে। তার কথা কি বলবো? কিছু কিছু বুদ্ধিজীবী তার কথায় তাল মিলায়। এটা আমাদের জন্য লজ্জার।

তিনি বলেন, তারেক রহমানের আসল চিন্তা হলো বঙ্গবন্ধু নিয়ে আবোল-তাবোল বলে মিডিয়ায় কভারেজ পাওয়া। মা-ছেলে একজন হারমোনিয়াম বাজান, আরেকজন তবলা বাজান।

ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান মিথ্যাচার করে ইতিহাস বিকৃত করছেন। এটি ষড়যন্ত্র। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকল শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে তাদের ইতিহাস বিকৃতির ষড়যন্ত্র রুখে দিতে হবে।।