বার্তাবাংলা ডেস্ক »

Dating App

rana12বার্তাবাংলা ডেস্ক :: নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের ঘটনায় এবার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন র‌্যাবের সাবেক কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কমান্ডার এম.এম. রানা। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কে.এম. মহিউদ্দিনের আদালতে জবানবন্দি দেন কমান্ডার রানা।

রাষ্ট্রপক্ষের কৌশলী ফজলুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গত ২ জুন তৃতীয় দফায় ৫ দিনের রিমান্ডে নেয়ার পর এম.এম. রানা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হন।

এর আগে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে বুধবার এ মামলায় আরেক আসামি র‍্যাবের সাবেক কর্মকর্তা অবসরপ্রাপ্ত মেজর আরিফ হোসেন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।
জবানবন্দিতে কিভাবে অপহরণের পর এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে তার বিস্তারিত বর্ণনা দেন তিনি।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র থেকে জানা গেছে, জবানবন্দিতে আরিফ বলেছেন, এই অপহরণ ও হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নূর হোসেন। আরিফ এবং র‌্যাব-১১-এর তত্কালীন অধিনায়ক লে. কর্নেল তারেক সাঈদ মোহাম্মাদ, লে. কমান্ডার এম এম রানাসহ র‌্যাবের ১১ জন সদস্য অংশ নিয়েছিলেন। জবানবন্দিতে আরিফ দাবি করেন, কেবল তাঁরা নিজেরা সিদ্ধান্ত নিয়ে এ ঘটনা ঘটাননি। র‌্যাবের সদর দপ্তরের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাও বিষয়টি জানতেন।

তারেক আরও পাঁচ দিনের রিমান্ডে
নজরুলসহ পাঁচজনকে হত্যা মামলায় তৃতীয় দফায় পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষ হওয়ায় লে. কর্নেল তারেক সাঈদ ও মেজর আরিফকে গতকাল বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে নারায়ণগঞ্জের আরেক জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম ইশতিয়াক আহম্মেদ সিদ্দিকীর আদালতে হাজির করে পুলিশ।

এর মধ্যে আরিফ দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দেওয়ায় তাঁকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। আর পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আইনজীবী চন্দন সরকার হত্যা মামলায় তারেক সাঈদের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »