‘মোদি বাংলাদেশের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখবেন’

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: ভারতের নতুন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার সকালে জাপানের রাজধানী টোকিওতে জাতীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। এসময় জাপানের প্রধানমন্ত্রী সিনজো অ্যাবে আগামী আগস্টে বাংলাদেশ সফর করবেন বলেও জানান শেখ হাসিনা।

জাপান সফরের শেষ দিনে নিপ্পন প্রেস সেন্টারে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতীয় প্রেসক্লাবে স্থানীয় সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে শেখ হাসিনা জাপান সফরে দু’দেশের সম্পর্কন্নয়নে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি ও সমঝোতার বিষয়গুলো তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি ধরে রাখতে বাংলাদেশের জনগণ বর্তমান সরকারকে পুনরায় নির্বাচিত করেছে।

এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণ আমাদের নেতৃত্বকে পছন্দ করে, তাই তারা দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য আমাদেরকে পুনরায় নির্বাচিত করেছে। আমাদের জনগণ শান্তি, সমৃদ্ধি ও গণতন্ত্রকে বিশ্বাস করে এবং উন্নতির এই ধারাবাহিকতাকে অব্যাহত রাখতে চায়।’

প্রেসক্লাবে জাপানের সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন শেখ হাসিনা। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য দেশ হিসেবে জাপানকে বাংলাদেশ ছাড় দেবে কিনা সে প্রশ্নেরও কূটনৈতিক জবাব দেন প্রধানমন্ত্রী।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অস্থায়ী পরিষদের সদস্যের ব্যাপারে আমি জাপানের প্রধানমন্ত্রী মি. অ্যাবেকে বাংলাদেশে আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছি। আমার মনে হয় আপনারা অবশ্যই এ ব্যাপারে ভাল কিছু ফলাফল আশা করতে পারেন।’

প্রতিবেশী দেশ ভারতের নতুন সরকারের নীতি আদর্শের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের সাথে সম্পর্ক কেমন হবে সে প্রশ্নেরও জবাব দেন শেখ হাসিনা। আশা করেন নরেন্দ্র মোদি তার দেশের স্বার্থে পররাষ্ট্র নীতিকেই অনুসরণ করবেন। প্রধানমন্ত্রী জোর দিয়ে বলেন দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও জনগণের নিরাপত্তা কিভাবে নিশ্চিত করতে হয় সেটা তিনি ভালো করেই জানান।

এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ভারতে যে কেউই ক্ষমতায় থাকুক না কেন তারা তাদের পররাষ্ট্র নীতি অনুসরণ করা উচিৎ। নরেন্দ্র মোদীর নিজস্ব নীতি আদর্শ রয়েছে এবং তার ওপর ভিত্তি করেই তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। আমি আশা করব তিনি ভারতের অন্যসব প্রধানমন্ত্রীর মতোই আচরণ করবেন।’

নিপ্পন প্রেস সেন্টারে প্রেসক্লাবের পরিদর্শন বইয়ে স্বাক্ষর করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বাংলাদেশের শিল্পীর আকা একটি চিত্র জাপান সরকারকে উপহার দেন।