বার্তাবাংলা ডেস্ক »

লা লিগার আগের ম্যাচে এসপানিওলের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করা লিওনেল মেসি ম্যাচের প্রথম অংশে ছিলেন অনুজ্বল। পুরো ম্যাচেও জ্বলে উঠতে পারেননি তার আক্রমণভাগের সঙ্গী লুইস সুয়ারেস। গেতাফের মাঠে প্রথমার্ধে পিছিয়ে পড়ার পর পয়েন্ট হারানোর শঙ্কায় পড়া বার্সেলোনাকে উদ্ধার করেছেন বদলি হিসেবে নামা ব্রাজিলের মিডফিল্ডার পাওলিনিয়ো।

শনিবার স্থানীয় সময় বিকেলে ২-১ গোলের কষ্টের জয় পেয়েছে এরনেস্তো ভালভেরদের দল। পিছিয়ে পড়ার পর সমতা ফিরিয়েছিলেন আরেক বদলি খেলোয়াড় দেনিস সুয়ারেস। এরপর ম্যাচের শেষ দিকে পাওলিনিয়োর গোলে লা লিগায় মৌসুমের চারটি ম্যাচেই জয় পেল গতবারের রানার্সআপরা।

লিগের গত তিন ম্যাচে দারুণ খেলা বার্সেলোনাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি ম্যাচের শুরুর দিকে। বরং ভালো খেলে ষষ্ঠদশ মিনিটে প্রথম সুযোগ তৈরি করে স্বাগতিকরা। বাঁ দিক থেকে গাকু শিবাসাকির ক্রস জেরার্দ পিকের গায়ে লেগে দূরের পোস্ট দিয়ে যাওয়ার সময় একটুর জন্য বল জালে পাঠাতে পারেননি স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড হোর্হে মলিনা।

ভালো কোনো আক্রমণ গড়তে পারার আগেই ২৬তম মিনিটে চোট পেয়ে উসমানে দেম্বেলেকে মাঠের বাইরে যেতে হয়। আধ ঘণ্টা পার হওয়ার পর অবশেষে ভালো কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারে বার্সেলোনা। তবে আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার ক্রসে সামুয়েল উমতিতি কাছ থেকে হেড করেন সোজা গোলরক্ষক ভিসেন্তে গুয়াইতার কাছে।

৩৯তম মিনিটে মৌসুমের অন্যতম সেরা গোলে এগিয়ে যায় গেতাফে। ফুল-ব্যাক দামিয়ান সুয়ারেসের উঁচু করে বাড়ানো বল ডি-বক্সে বুক দিয়ে নামিয়ে মার্কেল বের্গারা সুযোগটা তৈরি করে দিয়েছিলেন। বাঁ পায়ের দুর্দান্ত ভলিতে উপরের ডান কোণ দিয়ে বল জালে পাঠান জাপানি মিডফিল্ডার শিবাসাকি।

লা লিগায় এ মৌসুমে প্রথমবারের মতো বল ঢুকলো বার্সেলোনার জালে।

৪৪তম মিনিটে ডি-বক্সের ভেতর থেকে মরোক্কোর ফরোয়ার্ড ফয়সাল ফজরের জোরালো শট ক্রসবারের সামান্য উপর দিয়ে বেরিয়ে গেলে ব্যবধান দ্বিগুণ হয়নি।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে মেসির ফ্রি-কিক উপরের বাঁ কোণ দিয়ে জালে ঢোকার সময় ঝাঁপিয়ে ঠেকান গুয়াইতা।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »