খালেদাকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখার পরিকল্পনা

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: নারায়ণগঞ্জে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে জনসভা করতে অনুমতি না দেয়ার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। একইসঙ্গে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট এবং জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা আলিয়া মাদ্রাসায় স্থানান্তরেরও সমালোচনা করেছেন বিএনপির মুখপাত্র। তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে হেয় করতে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন এই মামলা করা হয়েছে। এই মামলার বিচার একটি দায়রা আদালতে চলছিল। আইন মন্ত্রণালয় তা আলিয়ার মাদ্রাসায় নেয়ার বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে, এর কারণ হল খালেদা জিয়াকে হয়রানি করা। খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখার পূব পরিকল্পনার অংশ এসব।
বৃহস্পতিবার নয়া পল্টনে দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন নারায়ণগঞ্জে নিহতদের পরিবারকে সান্তনা জানাতে, সহানুভূতি জানাতে যেতে চাচ্ছিলেন। তাকে বাধা দেয়া গণতন্ত্রকে বাধা দেয়ার শামিল। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই।
নারায়ণগঞ্জের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী বিএনপিকে ১৪ মে জনসভা করতে না দেয়ার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করে অনুমতি দেবেন বলে ফখরুল আশাবাদ ব্যক্ত করেন। নারায়ণগঞ্জের মানুষের পাশে দাঁড়াতে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আ স ম হান্নান শাহ জেলাটিতে গেছেন বলেও বিএনপি নেতারা জানান। ১৪ই মে নারায়ণগঞ্জে খালেদা জিয়ার জনসভার অনুমতি চেয়ে এরআগে স্থানীয় বিএনপি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনে আবেদন করেছিল। বুধবার রাতে সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী এ সমাবেশের অনুমতি না দেয়ার কথা জানান।