আবারও নারায়ণগঞ্জের এক ব্যবসায়ী নিখোঁজ!

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: নারায়ণগঞ্জের আবারো এক ব্যাবসায়ী নিখোঁজ হয়েছেন। এবার বন্দর উপজেলায় প্রায় ৫ লাখ টাকাসহ এক কাপড় ব্যবসায়ীর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছেনা বলে তার স্ত্রী থানায় অভিযোগ করেছেন। নারায়ণগঞ্জের বন্দর এলাকা থেকে ব্যবসায়ী আমানউল্লাহ (৩৫) নামে ওই ব্যবসায়ী নিখোঁজ হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছে তার পরিবার।

পুলিশ জানায়, সোমবার সকালে ব্যবসার কাজে নারায়ণগঞ্জ থেকে গাজীপুরের উদ্দেশ্যে বের হন কাপড় ব্যবসায়ী আমান উল্লাহ। সকাল ১০টা থেকে তার ফোন বন্ধ পান স্বজনরা। সোমবার দুপুরে তার পরিবারের লোকজন গাজীপুরে ফোন করে জানতে পারেন তিনি গাজীপুরে পৌঁছান নি।

নিখোঁজ আমান উল্লাহ’র মা আমেনা খাতুন বলেন, সোমবার সকালে ব্যবসার কাজে নারায়ণগঞ্জ থেকে গাজীপুরের উদ্দেশ্যে বের হয় আমান উল্লাহ। এরপর সকাল ১০ টা থেকে তার ফোন বন্ধ রয়েছে।

পরে অনেক খোঁজ-খবর নিয়ে তাকে না পেয়ে সোমবার রাত ১২টার দিকে বন্দর থানায় একটি জিডি করেন আমানুল্লাহর পরিবার।

২৪ দিন বয়সী কন্যা সন্তানের জনক আমান উল্লাহ নিখোঁজের পর থেকে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় রয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।

নিখোঁজ আমান উল্লাহ’র বাড়ি বন্দর থানার দক্ষিণ মুসাপুর গ্রামের মিনার বাড়ি এলাকায়। আমানউল্লাহর পরিবার জানায়, সোমবার ভোর ৬টা থেকে নিখোঁজ রয়েছেন আমান।

এ বিষয়ে ব্যবসায়ী আমানের বড় ভাই মোক্তার হোসেন সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, ‘শহরের ২ নং রেলগেট এলাকায় গেঞ্জির ব্যবসা করেন আমান। তিনি গাজীপুর থেকে মালামাল ক্রয় করে নারায়ণগঞ্জে বিক্রি করেন। সোমবার সকাল ৬টায় মালামাল কেনার জন্য বন্দর থেকে গাজীপুরের উদ্দেশে রওয়ানা হন তিনি।’

মোক্তার আরও জানান, আমান গাজীপুরের যে কোম্পানির কাছ থেকে কাপড় কেনেন তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে জানানো হয়, আমান গাজীপুরে যাননি।

এ বিষয়ে তার অপর এক স্বজন বলেন, ‘আজকে বেলা এগারোটার দিকে ২ নম্বর গেইটে ছিলাম। ওনার লগের যে আলামিন ছিল সে ফোন করছিলো মালের জন্য, মাল কত রেটে বেচবে।’

আমান উল্লাহকে খুঁজে বের করতে সব ধরনের চেষ্টা চলছে বলে দাবি পুলিশের।

কর্তব্যরত পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘সকাল বেলা সে বের হয়ে গেছে বাসা থেকে। রাত ১০টা পর্যন্ত সে ফেরে নি। এ অভিযোগ নিয়ে আমরা ওর কাছে যে মোবাইল ফোন ছিলো, ওইটা সংগ্রহ করে তার সর্বশেষ অবস্থান জানার চেষ্টা করেছি।’

জীবনের সূচনা লগ্নেই নির্মম বাস্তবতার মুখোমুখি মায়ের কোলে গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন মাত্র ২৪দিন বয়সী এই শিশুটি। শুধু তাই নয়, উপার্জনক্ষম ব্যক্তির অন্তর্ধানে উদ্বিগ্ন গোটা পরিবার।