নারায়ণগঞ্জের ঘটনায় পরস্পরকে দায়ী করছেন শামীম ও আইভী

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: নারায়ণগঞ্জে একের পর এক গুম, অপহরণ এবং হত্যাকাণ্ডের জন্য পরস্পরকে দায়ী করছেন, নারায়ণগঞ্জ -৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান এবং সিটি মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী। তবে আতঙ্কিত নগরবাসীকে আশ্বস্ত করে দু’জনই জনগণকে অন্যায়ের বিরুদ্ধে মাঠে নামার আহ্বান জানিয়েছেন।


গত দুই বছরে নারায়ণগঞ্জে গুম অপহরণ এবং হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে ১৫৩ জন মানুষ। যাদের মধ্যে ২৮ জন শিশু কিশোর। এক বছর আগে মেধাবী শিক্ষার্থী তানভীর মুহম্মদ ত্বকী হত্যাকাণ্ডের পর থেকে প্রতিবাদ মুখর হয়ে ওঠে নারায়ণগঞ্জবাসী। তবে সবশেষ প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলামসহ সাতজনকে অপহরণের পর হত্যার ঘটনায় প্রতিবাদের পাশাপাশি আতঙ্ক আর ভীতি যেন জেঁকে বসেছে নারায়ণগঞ্জবাসীর মনে। কিন্তু কেন নারায়ণগঞ্জে একের পর এক এই হত্যা গুমের ঘটনা? এমন প্রশ্ন ছিলো নগরের দুই প্রধান রাজনীতিবিদের কাছে।

শামীম ওসমানের দিকে ইঙ্গিত করে নারায়ণগঞ্জ সিটি করর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জে এমন আর দ্বিতীয় কোন প্রভাবশালী পরিবার নাই যারা এখানকার মানুষদেরকে জিম্মি করে রেখেছে, প্রশাসনকে ব্যবহার করছে, দলেকে অপদস্থ করছে।’

এ সময় আইভী আরও বলেন, ‘সরকার পদক্ষেপ নিয়েছে আমরা সরকারের ওপর আস্থা রাখছি।’

এ প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জ -৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের মেয়র মিথ্যাবাদী। তিনি বিভিন্ন মিডিয়ার সামনে মিথ্যা কথা বলে এমন একটা পরিবেশ তৈরি করছেন যে ঘটনাটা আমরা ঘটিয়েছি।’

এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘আমার জীবন এখন হুমকির মুখে।’

সাত হত্যাকাণ্ডের তদন্ত ও বিচারের জন্য সিটি মেয়র আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও প্রশাসনকে আরেকটু সময় দেয়া উচিৎ বলে মন্তব্য করলেও সংসদ সদস্য বলছেন, এর পেছনে দায় থাকতে পারে প্রশাসনেরই।

তবে আতঙ্কিত না হয়ে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে নগরবাসীকে সচেতন হবার পরামর্শ দুজনেরই। এক্ষেত্রে সরকারের শীর্ষ মহলের সহযোগিতাও চেয়েছেন তারা।