দেশে কোনো গণতন্ত্র নেই: খালেদা

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: দেশে কোনো গণতন্ত্র নেই—৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মধ্য দিয়ে গণতন্ত্রের কবর রচনা করেছে এ সরকার বলে জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। শনিবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে ঢাকা মহানগর শ্রমিক দলের কাউন্সিল ও সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

খালেদা জিয়া বলেন, অস্ত্রাগারে পরিণত হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়, চলছে খুন ও টেন্ডারবাজি। এ সব জুলুম-নির্যাতনের দায়ভার সরকারকেই নিতে হবে আর সময় হলে আন্দোলন হবে।

তিনি বলেন, ‘দেশে গণতন্ত্র নেই, গণতন্ত্র মৃত। এ সরকার গণতন্ত্রের কবর রচনা করেছে ৫ জানুয়ারি। বাংলাদেশের মানুষ চেয়ে ছিল একটি নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন আর এ অবৈধ সরকার সেই নির্বাচন দিতে ভয় পায়।’

দলের নেতাকর্মীদের আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানিয়ে খালেদা জিয়া বলেন, সময় হলেই আন্দোলন শুরু হবে এবং জবাব দেয়া হবে সকল জুলুম-নির্যাতনের।

তিনি আরো বলেন, ‘এখন সময় হয়েছে এ অন্যায়, জুলুম-অত্যাচার মুখ বন্ধ করে শুধু দিন রাত চোখের পানি ফেলে নয় বরং এ জুলুম-অত্যাচারের জবাব দিতে হবে। আলোচনার মাধ্যমে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অতিদ্রুত একটি নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন। যাতে গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠিত হয়। আর না হলে বেশি দেরি করলে ও জুলুম-অত্যাচারের মাত্রা বাড়ালে তার পরিণতির জন্য কিন্তু আপনারাই দায়ী থাকবেন।’

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার পরিবেশ এবং সেখানে লেখা-পড়ার পরিবর্তে খুন আর টেন্ডারবাজী হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বিএনপি চেয়ারপারসন।