নারীদিবসে সরকারি ছুটি ঘোষণা সময়ের দাবি

তাসকিনা ইয়াসমিন :: আশা করছি এবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৮ ই মার্চ বিশ্ব নারী দিবস উপলক্ষে সরকারিভাবে জাতীয় ছুটি ঘোষণা করবেন। কেননা, এখন বাংলাদেশে এটি সময়ের দাবি হয়ে দাঁড়িয়েছে। আজ ৩ মার্চ চলেই গেল। আগামী ৮ মার্চ আসতে আর মাত্র ৪ দিন বাকি আছে। প্রধানমন্ত্রী এবং দেশের সচেতন গোষ্ঠী বিষয়টি সূক্ষভাবে চিন্তা করে ৮ মার্চ নারী দিবস উপলক্ষে আজ-কালের মধ্যেই সরকারি ছুটি ঘোষণা করতে পারেন।

যে দেশে রাজনীতি, অর্থনীতি, সমাজ নির্মানে নারীর বিশেষ পদচারণা যে দেশে প্রধানমন্ত্রী, বিরোধীদলীয় নেতা, স্পিকার নারী। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি, বিচারপতি, বিচারক, আইনজীবী, শিক্ষক, ডাক্তার, সাংবাদিক, নৌ-সেনা, বিমান, পুলিশ, গোয়েন্দা সংস্থা, গার্মেন্টস কর্মীসহ বিভিন্ন কঠিন শ্রম সহ সব পেশায় নারীর পদচারণা রয়েছে। যে দেশ নারীর ক্ষমতায়নে বিশ্বে রোল মডেল সেই দেশে নারী দিবসে ছুটি না থাকাটা আসলে কোনভাবেই মানায় না। এদিন সরকারি ছুটি ঘোষণা করলে সব শ্রেণী পেশার কর্মজীবী নারী এবং গৃহিনীরা পরিবার-পরিজন, বন্ধু-বান্ধব, সন্তান-স্বজন নিয়ে সুন্দর সময় কাটাতে পারবে। যারা পেশার প্রয়োজনে ছুটি পাবে না তারাো বিশেষ ব্যবস্থায় বাড়তি বেতন পাবে। আসলে জাতিসংঘ ঘোষিত যে নারী দিবস পালিত হয়ে আসছে বিশ্ব ব্যাপী সেই দিবসতো বাংলাদেশ সরকার অত্যন্ত আন্তরিকতার সঙ্গে পালন করে। যদি এ দিবসে সরকারি ছুটি ঘোষনা করা হয় তাহলে দিবসটি সত্যিকারের মাত্রা পাবে। এদিন নারী যেমন তার পরিবার-পরিজনকে সময় দিতে পারবে। পরিবারের পুরুষ সদস্যরাো উপলদ্ধি করে নারীর পাশে দাঁড়াবে। নারীর সহযোগী হবে।

এদিন সরকারি এবং বেসরকারি উদ্যােগে অনেক অনুষ্ঠান মালা হয় নারীরা সেখানে স্বতস্ফূর্তভাবে অংশ নিতে পারবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিবারের মতো এবারো শুনলাম বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে নারী দিবসের প্রোগ্রামে যোগ দেবেন। আমি চাই এদিন দেশের যখন যিনিই প্রধানমন্ত্রী থাকুক তিনি সোহরাোয়ার্দী উদ্যানে দেশের বহু সংখ্যক নারীর সমাবেশে বক্তৃতা দেবেন এটি দেখতে চাই। এমনি সময় তো নারীদের পুুরুষদের ভীড়ে তেমন কাছে যাবার সুযোগ হয় না অন্তত সেদিন দেশের প্রধানমন্ত্রীর বক্তৃতা অনেক সংখ্যায় নারী এসে মঞ্চের কাছে এবং বিভিন্ন দিকে খোলা মাঠে বসে শুনুক এবং একসঙ্গে নারীর জয়গান গাক এমন দৃশ্য দেখতে চাই।

আমাদের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নারীদের অনেক কথা শুনলেো এখনো নারীদের সম্পদের সুষম বন্টন নিয়ে কোন উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ নিতে পারেন নি। আশা করি তিনি এবার নারী দিবসে ঘোষণা দিয়ে এর জয়যাত্রা শুরু করবেন!

বিশ্বের ৩৯ টি দেশে এখন নারী দিবসে সরকারি বা জাতীয় ছুটি আছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্পিকার ড. শিরীন শারমীন চেৌধুরী, মহিলা এবং শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী সবাই এদেশের নারীদের সাবির্ক কার্যক্রম বিবেচনায় এনে এবারের বিশ্ব নারী দিবসের দিন ৮ মার্চ সরকারি ছুটি ঘোষণা করলে তারা নিজেদের এবং এদেশের নারীদের প্রতি শ্রদ্ধা আরো এক অনন্য নজীর স্থাপন করতে সক্ষম হবেন বলেই আমার বিশ্বাস। নিশ্চয় এ ছুটি নিয়ে পুরুষদের কোন আপত্তি থাকবে না। কারণ নারী তার পুরোটা জুড়েই আছে।

তাসকিনা ইয়াসমিন : সাংবাদিক