বার্তাবাংলা ডেস্ক »

BRAC Logoবার্তাবাংলা রিপোর্ট :: ওষুধ প্রতিরোধী যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ (Multi Drug Resistance-MDR) করতে হলে ডটস ব্যবস্থাকে পরিপূর্ণভাবে কার্যকর করতে হবে। কিন্তু আমাদের দেশে ডটস কার্যক্রম এখনো সেভাবে সফল হয় নি। এছাড়া এ রোগ নিয়ন্ত্রণে যেসব চ্যালেঞ্জগুলো রয়েছে সেগুলো হলো রোগীদের চিকিৎসা সেবায় গাফলতি, স্বাস্থ্য আচরণবিধি মেনে না চলা, আধুনিক চিকিৎসা উপকরণের অভাব, মানসম্মত ওষুধ না থাকা, চিকিৎসার জন্য স্বতন্ত্র এমডিআর হাপাতালের উদ্যোগ না নেওয়া, শিশু যক্ষ্মা সনাক্তকরণে সমস্যা, পাবলিক-প্রাইভেট পাটনারশিপে জোরালো উদ্যোগ না থাকা, ডায়াগনসিস করার ক্ষেত্রে জটিলত ইত্যাদি।

রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে আজ শুক্রবার অনুষ্ঠিত ‘ওষুধ প্রতিরোধী যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ ও করণীয়’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে  বক্তারা এ অভিমত ব্যক্ত করেন। জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, দৈনিক  সংবাদ ও ব্র্যাক এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

এতে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন দৈনিক সংবাদ এর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক খন্দকার মুনীরুজ্জামান।  অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ব্র্যাকের স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও জনসংখ্যা কর্মসূচির সিনিয়র সেক্টর ম্পেশালিস্ট ডা. কাজী আল মামুন সিদ্দিকী। বৈঠকে  প্রধান অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. খোন্দকার মোহাম্মদ সিফায়েতউল্লাহ। ব্র্যাকের স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও জনসংখ্যা কর্মসূচির সহযোগী পরিচালক মো: আকরামুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির লাইন  ডিরেক্টর ডা. মো: আশেক হোসেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্য্যালয় এর সাবেক প্রো-ভিসি ও স্বাস্থ্য অধিকার আন্দোলন এর সভাপতি রশীদ-ই-মাহবুব, বিশিষ্ট নাট্য ব্যক্তিত্ব  ও এফডিসি এর মহাপরিচালক পিযুষ বন্দ্যোপাধ্যায়, বিশিষ্ট নারী নেত্রী ফরিদা আকতার, এভারেস্ট বিজয়ী এম এ মুহিত প্রমূখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন দৈনিক সংবাদ এর ব্যবস্থাপনা সম্পাদক কাশেম হুমায়ুন

প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. খোন্দকার মোহাম্মদ সিফায়েতউল্লাহ সরকারের সাফল্য তুলে ধরে বলেন, যক্ষ্মাসহ সরকারের সকল কর্মসূচি সফল করতে হলে প্রয়োজন সম্মিলিত প্রচেষ্টা, অঙ্গিকার, বেসরকারি পর্যায়ে ও মিডিয়ার সহযোগিতা এবং সর্বোপরি গণসম্পৃক্তকরণ।

ব্র্যাকের স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও জনসংখ্যা কর্মসূচির সহযোগী পরিচালক মো: আকরামুল ইসলাম ড. মো. আকরামুল ইসলাম বলেন, যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে হলে আমাদের এখন তিনটি বিষয়কে গুরুত্ব দিতে হবে। এগুলো হচ্ছে: জনসম্পৃক্ততার জন্য বাণিজ্যিক বা করপোরেট প্রতিষ্ঠান যেমন বিজিএমইএ ও বিকেএমইএর সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করা, রোগীদের দ্রত ডায়াগনোসিস ও চিকিৎসা কর্ াএবং দরিদ্র রোগীদের স্বার্থে জনউদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচি নেওয়া।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »