আ. লীগ ও বিএনপির সমর্থকদের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ, নিহত ২

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: নিকলি উপজেলায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমর্থকদের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। এতে দুই পক্ষের দুজন নিহত হয়েছে।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলার সিংপুর ইউনিয়নের সিংপুর গ্রামে এ বন্দুকযুদ্ধ হয়।

এতে উভয় পক্ষের আহত হয়েছেন অর্ধশত লোকজন। এর মধ্যে ২০ জনকে নিকলি, করিমগঞ্জ, মিঠামইন ও কিশোরগঞ্জের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহতরা হলেন- সিংপুর গ্রামের ওয়াইজ করনি (৩৪) ও কাঞ্চন মিয়া (৪৫)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে সিংপুর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আবদুল হাশিম ও ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুনের পক্ষের লোকজনের মধ্যে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে বিকেলে আবদুল হাশিমের পক্ষের দুজনকে মারপিট করে প্রতিপক্ষ হারুনের লোকজন।

এ ঘটনার পরই উভয়পক্ষের মধ্যে শুরু হয় সংঘর্ষ। এক পর্যায়ে তা বন্দুকযুদ্ধে রূপ নেয়। হাশিমের সমর্থক ওয়াইজ করনি (৩৪) গুলিবিদ্ধ হন। একই সময়ে হারুনের সমর্থক কাঞ্চন মিয়ার (৪৫) মাথায় দা দিয়ে কোপ দেয় প্রতিপক্ষ। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

নিকলী থানা সূত্রে জানা গেছে, প্রভাব বিস্তার নিয়ে সিংপুর গ্রামে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলি হয়। এসময় দুই পক্ষের মধ্যে অন্তত ২০-২৫টি গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে। এতে আহত হয় ২০ জনেরও বেশি।

নিকলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবুল আলম জানান, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষ হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

অষ্ট্রগ্রাম সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) জামাল উদ্দিন জানিয়েছেন, এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিত নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।