মানুষ হিসেবে সমাজে নিজের মুখই দেখাতে লজ্জা পাচ্ছি : বেনজির

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার বেনজির আহমেদ বলেন, “আদুরিকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়েছে। তার ওপরে এত মর্মান্তিক নির্যাতন দেখে মানুষ হিসেবে সমাজে নিজের মুখই দেখাতে লজ্জা পাচ্ছি।”
শনিবার বেলা পৌনে ১২ টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অন স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) গৃহকর্ত্রী কর্তৃক নির্যাতিত গৃহকর্মী আদুরিকে দেখতে এসে তিনি এ কথা বলেন।

বেনজির আহমেদ বলেন, “চিকিৎসকরা জানিয়েছেন আদুরির অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার ওপরে যেভাবে নির্যাতন করা হয়েছে তা সত্যিই অমানবিক। গৃহকর্মীদের ওপরে এ ধরনের অত্যাচার যেন আর কেউ না করে সেজন্য অপরাধীদেরকে দৃষ্টান্তমূলক সাজা দিতে হবে।”

এখনই সময় এসেছে এ ধরনের অপরাধের জন্য পৃথক আইন করার, মন্তব্য করে বেনজির বলেন “অত্যাচারী নদীর যেন দ্রুত বিচার আইনে সাজা হয়, এজন্যে আমি মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করবো।”

বেলা পৌনে ১২ টায় ঢামেকের অন স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারের মূল ফটকের সামনে এসে দাঁড়ান ডিএমপি কমিশনার। কমিশনারকে দেখাতে হুইল চেয়ারে করে আদুরিকে নিয়ে আসেন তার মা শাফিনা বেগম (৬০)।

তার থাকা-খাওয়ার কোন সমস্যা হচ্ছে কি না? এ প্রশ্নের উত্তর না দিয়ে অঝোরে কাঁদতে থাকেন শাফিনা। কমিশনার তাকে ভেঙে না পড়ার সান্তনা দিয়ে হাতে ফলের ঝুড়ি তুলে দেন। বেলা সাড়ে ১২ টায় তিনি ঢামেক ত্যাগ করেন।
উল্লেখ্য, গত ২৩ সেপ্টেম্বর ময়লার স্তূপ থেকে অচেতন অবস্থায় আদুরিকে উদ্ধার করে ক্যান্টনমেন্ট থানা পুলিশ। এর পরে আদুরির কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সাগুফতার ২৯/১ নম্বর বাসা থেকে গৃহকর্ত্রী নওরীন জাহান নদীকে গ্রেফতার করে পল্লবী থানা পুলিশ। গৃহকর্তা সাইফুল ইসলাম মাসুদ বর্তমানে পলাতক রয়েছেন। – See more at: http://www.alokitobangladesh.com/latest-news/2013/09/28/25543#sthash.3LHKIweY.dpuf