বার্তাবাংলা ডেস্ক »

দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ শেষে এক-দেড় মাসের বিরতি। এরপর পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসার কথা আছে শ্রীলঙ্কা দলের। কিন্তু ডিসেম্বরের ওই সিরিজের টেস্টে কে নেতৃত্ব দেবেন বাংলাদেশ দলকে?

প্রশ্নটা এখনই উঠছে, কারণ দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ দিয়েই সম্ভবত অবসান হয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের ক্রিকেটে মুশফিকুর রহিম-যুগ। সীমিত ওভারের ক্রিকেটের পর এবার টেস্টের অধিনায়কত্ব থেকেও তাঁকে সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত মোটামুটি নিয়ে ফেলেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিসিবির এক পরিচালক কাল মুঠোফোনে নিশ্চিত করলেন, ‘আমরা মুশফিকের বিকল্প ভাবতে শুরু করেছি। টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে তাঁর কিছু বক্তব্য গ্রহণযোগ্য নয়। অনেক সিদ্ধান্তও ভুল হচ্ছে।’

মাশরাফি বিন মুর্তজা টেস্ট খেলছেন না। মুশফিককে নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হলে টেস্ট দলের সম্ভাব্য অধিনায়ক হতে পারেন তিন সিনিয়র ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল বা মাহমুদউল্লাহর মধ্যে যেকোনো একজন। বিসিবির আগ্রহটা সাকিবের দিকেই বেশি। তবে এই চিন্তার সমান্তরালে তাদের এটাও ভাবতে হচ্ছে যে সাকিব আদৌ টেস্ট খেলবেন কি না বা খেললেও নিয়মিত খেলবেন কি না। বিশ্রাম চেয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন তিনি। সাকিবকে নিয়ে বিসিবির দ্বিধাদ্বন্দ্বের এটাই কারণ।

সাকিব না হলে তামিমেরই টেস্ট অধিনায়ক হওয়ার সম্ভাবনা বেশি বলে জানিয়েছে সূত্র। মাহমুদউল্লাহর পারফরম্যান্সে ধারাবাহিকতার অভাবের কারণেই তাঁর ওপর আস্থা রাখতে পারছে না বোর্ড। অধিনায়কত্বের চাপে যদি সেটা আরও নুয়ে পড়ে! আবার ফর্মে না থাকা অবস্থায় নিজের সঙ্গে লড়াইয়েও অনেক সময় বোঝা হয়ে দাঁড়ায় নেতৃত্বের বাড়তি চাপ। বিসিবির ওই পরিচালক অবশ্য বলেছেন, ‘পরবর্তী টেস্ট সিরিজের আগে আমাদের হাতে যথেষ্ট সময় আছে। মুশফিকের পরিবর্তে কাকে দায়িত্ব দেওয়া হবে, সেই আলোচনা এখনো হয়নি। বোর্ড নিশ্চয়ই ওদের সঙ্গে কথা বলবে।’

টেস্টে বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি সাফল্য পেয়েছে মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বেই।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »