রাজধানীতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দুই নেতাকে গুলি করে হত্যা

সাইফুল ইসলাম: রাজধানীর হাজারীবাগে বিএনপি নেতা জসিম উদ্দিন(৫০) ও গুলশানের ১১৫/এ নম্বর রোডে যুবলীগ নেতা রিয়াজ উদ্দিন খান মিলকীকে (৫৫) গুলি করে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। অন্যদিকে ঢাকার লালবাগ এলাকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে ইকবাল হোসেন নামে এক ছাত্রলীগ নেতা আহত ও আদাবর এলাকায় চাঁদার দাবিতে  মাহমুদা নামের এক গৃহবধুকে গুলি করেছে দুর্বৃত্তরা। সোমাবর রাতে এ সশস্ত্র ঘটনাগুলো সংঘটিত হয়। গুলশান জোনের উপপুলিশ কমিশনার লুৎফুল কবির জানান, সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে গুলশান ১ ও ২ নম্বর সংলগ্ন ১১৫/এ রোডের সামনে যুবলীগের ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) শাখার ১নং সাংগঠনিক সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন খান মিলকী নিজ গাড়ি থেকে নামার সঙ্গে সঙ্গে সন্ত্রাসীরা তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি নিহত হন। ভোর সাড়ে ৪টার দিকে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে। এদিকে মিলকীর নিজ এলাকা আরামবাগ-মতিঝিলে তার খুন হওয়াকে কেন্দ্র করে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।  এদিকে বিএনপি নেতা জসিম উদ্দিনের হত্যা বিষয়ে প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, সোমবার হাজারীবাগের ১৩৩/ বি নম্বর নিজ বাড়ির সামনে চায়ের দোকানে বসেছিলেন জসিম উদ্দিন। এ সময় মোটরসাইকেলে ২ যুবক এসে তাকে এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করে পালিয়ে যায়। আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে রাত ৯টার দিকে তার মৃত্যু হয়। জসিম উদ্দিন একজন চামড়া ব্যবসায়ী ও হাজারীবাগ থানার ২২ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ছিলেন। তবে কি কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে তদন্তের পর তা বলা যাবে বলে পুলিশ জানিয়েছে। এছাড়া ইফতারের পরপর পুরান ঢাকার লালবাগ এলাকায় সন্ত্রাসীদের ছোড়া গুলিতে ইকবাল হোসেন নামে এক ছাত্রলীগ নেতা আহত হয়েছেন। আশংকাজনক অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ছাড়া চাঁদার দাবিতে আদাবর এলাকায় রাত সাড়ে ৮টার দিকে মাহমুদা নামে এক গৃহবধূকে গুলি করেছে দুর্বৃত্তরা।