বার্তাবাংলা ডেস্ক »

দুই নারী ভক্তকে ধর্ষণের দায়ে ২০ বছরের কারাদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত ভারতের কথিত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিংয়ের বিরুদ্ধে জোড়া খুনের মামলার শুনানি আজ শনিবার।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারি বাজপেয়ির কাছে পাঠানো এক সাধ্বীর চিঠি প্রকাশের কারণে দেশ সেবক পত্রিকার সাংবাদিক রামচন্দ্র ছত্রপতি ও হরিয়ানায় সিরসার সাবেক ডেরা ব্যবস্থাপক রণজিৎ সিংকে হত্যা মামলায় অভিযুক্ত রাম রহিম।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সাংবাদিক রামচন্দ্র ছত্রপতি ও রণজিৎ সিং হত্যা মামলায় শুনানিকে কেন্দ্র করে আজ হরিয়ানার পঞ্চকুলায় আবারও নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ভারতের তদন্ত সংস্থা সেন্ট্রাল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (সিবিআই) বিশেষ বিচারক জগদীপ সিংয়ের আদালতে এই মামলার শুনানি হবে। গত ২৫ আগস্ট একই আদালত দুই নারী ভক্তকে ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের হওয়া দুটি মামলায় রাম রহিমকে দোষী সাব্যস্ত করেন। পরে ২৮ আগস্ট রাম রহিমকে ওই দুটি মামলায় ১০ বছর করে ২০ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়।

হরিয়ানা রাজ্যের পুলিশপ্রধান বি এস সাধু বলেন, রাম রহিমের বিরুদ্ধে জোড়া খুনের মামলার শুনানির কারণে গতকাল শুক্রবার থেকেই আদালত চত্বর ও পঞ্চকুলা শহরে আধা সামরিক বাহিনীর সদস্য ও পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ধর্ষণ মামলার রায় ঘোষণার আগে পঞ্চকুলায় যেভাবে ডেরার লাখো অনুসারী একত্র হয়েছিল, এবার তা এখনো দেখা যায়নি।

পুলিশ জানায়, জোড়া খুনের মামলার শুনানির সময় আদালতে রাম রহিমকে হাজির করা হবে না। রোহতাকের সানোরিয়া কারাগার থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শুনানিতে অংশ নেবেন তিনি।

সাংবাদিক রামচন্দ্র ছত্রপতি ও ডেরার সাবেক ব্যবস্থাপক রণজিৎ সিংকে ২০০২ সালে হত্যা করা হয়। এই হত্যা মামলায় ডেরাপ্রধান রাম রহিমকে অভিযুক্ত করে সিবিআই।

গত ২৫ আগস্ট রাম রহিমের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলার রায় ঘোষণার সময় পঞ্চকুলায় তাঁর সমর্থকেরা তাণ্ডব শুরু করে। পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষে ৩১ জন নিহত ও ২৫০ জন আহত হয়।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »

%d bloggers like this: