বাকিংহাম প্যালেসে প্রিন্স অব ক্যামব্রিজ

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: রয়েল বেবি প্রিন্স অব ক্যামব্রিজকে নিয়ে হাসপাতাল ছেড়ে  বাকিংহাম প্যালেসে উঠেছেন প্রিন্স উইলিয়াম ও কেট মিডলটন। হাসপাতাল ছাড়ার আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বৃটেন তথা বিশ্ববাসীর  প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে ভবিষ্যত রাজাকে নিয়ে মিডিয়া ও অপেক্ষমান জনতার সামনে আসেন প্রিন্স উইলিয়াম ও কেট। সেখানে তারা কিছু সময় অবস্থান করেন। প্রিন্স উইলিয়াম দম্পতি সোমবার লন্ডন স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৫ টায় হাসপাতালে পৌঁছান। এইদিনই বিকেল ৪টা ২৪মিনিটে পেডিংটনের সেন্ট মেরি হাসপাতালে ছেলে সন্তানের জন্ম দেন ডাচেস অব ক্যামব্রিজ। তবে সন্তান জন্মানোর ঘোষণা দেয়া হয় স্থানীয় সময় রাত সাড়ে আটটায়। ভবিষ্যত রাজার জন্মের খবরে আনন্দে আত্বহারা হয়ে পড়েন বৃটিশরা। তারা ভিড় জমান সেন্ট মেরিস হাসপাতাল ও বাকিংহাম প্যালেসের বাইরে। সোমবার রাতভর আনন্দে মাতোয়ারা থাকে বৃটেনবাসী। সশস্ত্র অভিবাদন জানানো হয় গ্রিন পার্ক এবং টাওয়ার অব লন্ডনে । লন্ডন আই-কে সাজানো হয় রঙ্গিন সাজে। আর টাওয়ার ব্রিজে জ্বলে উঠে উজ্জ্বল নীল আলো।
বাকিংহাম প্যালেসের মূখপাত্র জানান, মা ও ছেলে ভাল আছেন। রাণী দ্বিতীয় এলিজাবেথ ও  ডাচেস অব এডিনবার্গ ছেলে সন্তান জন্মের সংবাদে খুবই উচ্ছসিত। প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন বলেছেন, রয়েল বেবির জন্ম বৃটেনবাসীর জন্য খুবই আনন্দের। এই বেবির জন্ম  সারা দেশ উদযাপন করবে। বৃটিশ সিংহাসনের তৃতীয় উত্তরাধিকারী, জন্মের পর পরই যার নামের সাথে প্রিন্স অব ক্যামব্রিজ উপাধি যুক্ত হয়েছে সেই ভাগ্যবানের নাম এখনোও রাখা হয়নি। নামের ব্যাপারে রাজপরিবার এখনোও মূখ খুলছেন না। তবে জর্জ, জেমস ও আলেকজান্ডার এই তিনটি নামের মধ্যে যেকোন একটি নাম রাখা হবে বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ২৯ এপ্রিলে উইলিয়াম ও কেট মিডলটন বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।