ড. জহিরের মরদেহ দেশে পৌঁছেছে

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: সংবিধান ও কোম্পানি আইন বিশেষজ্ঞ বিশিষ্ট আইনজীবী ড. এম জহিরের মরদেহ দেশে পৌঁছেছে।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের এক কর্মকর্তা জানান, শুক্রবার বেলা ১২টা ১০ মিনিটে থাই এয়ারওয়েজের একটি বিমানে ঢাকা পৌঁছায় ড. এম জহিরের মরদেহ।
এসময় প্রয়াত আইনজীবীর স্ত্রী শাহিদা জহির, ভাই জমির উদ্দিন ও ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী উপস্থিত ছিলেন।
থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ড. এম জহির ( ৭৪) মারা যান।তিনি স্ত্রী ও এক ছেলে রেখে গেছেন।
ড. এম জহিরের সহকারী ব্যারিস্টার খালেদ হামিদ চৌধুরী ও তামজিদা মিলা বৃহস্পতিবার জানান, শুক্রবার আড়াইটায় সুপ্রিম কোর্টে ড.এম জহিরের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। জানাজার পর বনানী কবরস্থানে বাবার কবরের পাশে তাকে দাফন করা হবে।
ড. এম জহির অস্থিমজ্জার ক্যান্সারে ভুগছিলেন। গত ২৭ জুন তাকে ঢাকা থেকে ব্যাংকক নেওয়া হয়।
১৯৩৯ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কিছু আগে কলকাতার ভবানীপুরে জন্ম নেয়া ড. জহির ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে বিএ, এমএ এবং এলএলবি ডিগ্রি অর্জন করেন।
১৯৬২ সালে তিনি ঢাকা হাইকোর্টে আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্ত হন। ১৯৬৬ সালে লন্ডন ইউনিভার্সিটি থেকে তিনি কোম্পানি আইনের ওপর পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।
১৯৭৮ সালে সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হন। প্রায় ২০ বছর তিনি কোম্পানি আইনের ওপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনাও করেন। ১৯৭৪-৭৫ সালে তিনি অস্ট্রেলিয়ান অ্যাটর্নি জেনারেল অফিসের কার্যক্রমেও অংশগ্রহণ করেন।
তার মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন প্রমুখ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।