আজমত উল্লাহকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করবো

গাজীপুর থেকে:

বিপুল ভোটে গাজীপুরের মেয়র নির্বাচিত করায় গাজীপুরবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ১৮ দল সমর্থিত এমএ মান্নান।

তিনি এ বিজয়কে জনগণের বিজয় হিসেবে দেখছেন। পাশাপাশি মহাজোট সমর্থিত প্রার্থী অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খানকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করার আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তিনি।
শনিবার অনুষ্ঠিত গাজীপুর সিটি নির্বাচনের মোট ৩৯২টি কেন্দ্রের বেসরকারি ফল অনুযায়ী এমএ মান্নান টেলিভিশন প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪ লাখ ৬৮ হাজার ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মহাজোট সমর্থিত অজমত উল্লাহ খান দোয়াত-কলম প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩ লাখ ১২ হাজার ভোট। অর্থাৎ মান্নান এক লাখ ৫৬ হাজার ভোটের বিশাল ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন। যদিও সেখানে স্থাপিত রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় থেকে এখনও সব কেন্দ্রের ফল ঘোষণা করা হয়নি।
প্রথম নগরপিতা হিসেবে এলাকার জনগণের সেবা করার সুযোগ পেয়ে অনেকটা উল্লাস প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘আল্লাহর অশেষ রহমতে আমি জয় পেয়েছি। শুরু থেকে জয় ছিনিয়ে নেয়ার ব্যাপারে সব ধরণের পরিকল্পনা করা হলেও জনগণ তা রুখে দিয়েছে।’
মান্নান বলেন, ‘গাজীপুরকে একটি আধুনিক সিটি করপোরেশন হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা রয়েছে। জনগণের সহযোগিতায় যেভাবে আমি মেয়র নির্বাচিত হয়েছি, তেমনি তাদের সহযোহিতায় পরিকল্পিত নগরায়নের মাধ্যমে সকল প্রকার নাগরিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করার ব্যাপারে সব সময় আমার সজাগ দৃষ্টি থাকবে।’
সরকারের দুর্নীতির কারণে মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘সরকার জনবিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। আওয়ামী লীগ চিরস্থায়ী ক্ষমতার জন্য জনগণের অধিকার হননের চেষ্টা করছে। জনগণ এখন পরিবর্তন চায়। এলাকার উন্নয়নে সর্বাত্মক চেষ্টা থাকবে।’
মান্নান বলেন, ‘ক্ষমতাসীনরা শুরু থেকেই নির্বাচনের ফলাফল নিজের করে নিতে সব ধরনের চেষ্টা চালিয়েছে। কিন্তু তা ব্যর্থ করে দিয়ে গাজীপুরবাসী ব্যালটের মাধ্যমে জবাব দিয়েছে।’
এটি জনগণের বিজয়, ভোটের মাধ্যমে জনগণ সরকারের প্রতি অনাস্থা জানিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘জনগণ সরকারের লাগামহীন দুর্নীতির জবাব দিয়েছে ব্যালটের মাধ্যমে। সরকারে উচিৎ পদত্যাগ করে নির্দলীয় সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ব্যবস্থা করা।’
আগামী জাতীয় নির্বাচন নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে অনুষ্ঠানের দাবিতে গাজীপুর থেকেই সরকার পতনের আন্দোলন গড়ে তোলা হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।