বার্তাবাংলা ডেস্ক »

Shabnoor1

নিজস্ব প্রতিবেদক ঃ বরগুনায় ইভ টিজিং-এর শিকার হয়ে অভিমানে আত্মহত্যা করেছে অষ্টম শ্রেণীর এক মাদ্রাসা শিক্ষার্থী শাবনুর (১৩)। সাবনুরের বাড়ি সদর উপজেলার বালিয়াতলী ইউনিয়নে। সে স্থানীয় চরপাড়া মোহাম্মাদিয়া দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ছিল। তার পিতা মোঃ দুলাল মোল্ল¬া বালিয়াতলী ইউনিয়নের একজন ইউপি সদস্য।
স্থানীয় অধিবাসী ও ভুক্তভোগী পরিবারসূত্রে জানা গেছে, একই এলাকার প্রবাসী আবুল কালামের বখাটে ও নেশাগ্রস্থ ছেলে ইমরান হোসেন শাবনুরকে দীর্ঘদিন ধরে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। এ বিষয়ে বারবার তার অভিভাবকদের অবগত করা সত্ত্বেও প্রতিকারের কোন ব্যবস্থায়ই নেয়নি তারা। খোঁজ নিয়ে আরও জানা গেছে, একই মাদ্রাসা থেকে গতবছর দাখিল পরীক্ষা দিয়ে ফেল করেছে ইমরান। সে মাদকাসক্ত ছিল বলেও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে। মাদ্রাসায় আসা যাওয়ার পথে প্রায় ইমরান শাবনুরের পথ আগলে আজেবাজে কথা বলত বলে জানিয়েছে সাবনুরের সহপাঠিরা।
বিভিন্ন সময়ে বখাটে ইমরানের ইভটিজিং এর শিকার হয়ে ক্ষোভ এবং ঘৃণায় শনিবার দুপুরে মাদ্রাসা থেকে ফিরে ঘরের দ্বোতলায় গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে দাবী করেন শাবনুরের বাবা স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ দুলাল মোল্ল¬া। তিনি বলেন, তার মেয়ে শাবনুর খুবই শান্ত স্বভাবের মেয়ে ছিল।
সুরত হাল শেষে শনিবার রাতে শাবনুরের মরদেহ বরগুনা থানায় নেয়া হয়। ময়না তদন্তের জন্য আজ রোববার শাবনুরের মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়েছে।
বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) পুলক চন্দ্র রায় জানান, বিষয়টি তারা অবগত হয়েছেন। মৃতের পরিবার মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে। মামলার পরে যথাযথ তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »