বার্তাবাংলা ডেস্ক »

tac aviation ltdবার্তাবাংলা রিপোর্ট :: বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক মানের ফ্লাইং ট্রেনিং ইন্সটিটিউট “টিএসি এভিয়েশন লিমিটেড” ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, সিলেটে নিজস্ব হ্যাঙ্গার, পাইলট ট্রেনিং ফ্লাইট ও নতুন এমডি-৮৩ এয়ারক্রাফট এর উদ্বোধন করেছে। প্রধান অতিথি হিসাবে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী মোহাম্মদ ফারুক খান। অনুষ্ঠানে বিমান ও পর্যটন বিষয়ক জাতীয় সংসদের স্থায়ী কমিটির সদস্য শফিকুর রহমান, বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব খুরশিদ আলম চৌধুরী, সিভিল এভিয়েশন অথরিটি অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মাহমুদ হোসেন বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। প্রথমবারের মত বাংলাদেশে পূর্ণাঙ্গ এভিয়েশন টেকনোলজি ও আন্তর্জাতিক মানের ফ্লাইং একাডেমীর উপর উচ্চতর শিক্ষা ও প্রশিক্ষন প্রদান করার জন্যই যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য থেকে প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত প্রথম শ্রেনীর প্রশিক্ষক নিয়োগ প্রদান করে বাংলাদেশের মতো তৃতীয় বিশ্বের দেশ থেকে আন্তর্জাতিক মানের পাইলট তৈরী করার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।
টিএসি এ্যারোনোটিক্যাল একাডেমীর পাইলট প্রশিক্ষণ কোর্সের গ্রাউন্ড ক্লাসের পর আজ থেকে ফ্লাইং কোর্স শুরু হয়েছে। ট্রেনিং ফ্লাইটের উদ্বোধন পরবর্তি একাডেমীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্যাপ্টেন তাসবিরুল আহমেদ চৌধুরী বলেন “আজীবনের লালিত স্বপ্ন পূরন হয়েছে।”
ক্যাপ্টেন তাসবিরুল আহমেদ চৌধুরী বলেন, “টিএসি এ্যারোনোটিক্যাল একাডেমীর পূর্ণাঙ্গ কার্যক্রম শুরুর ফলে এখন থেকে অধিক সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রীর বিদেশ থেকে পাইলট প্রশিক্ষন গ্রহনের প্রবনতা হ্রাস পাবে । এতে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হবে দেশ। টিএসি একাডেমীর কার্যক্রম শুরুর ফলেবেকার সমস্যা দূরীকরনে ভূমিকা রাখবে।”
ক্যাপ্টেন তাসবির বলেন, ”টিএসি এ্যারোনোটিক্যাল একডেমীর ঢাকায় প্রশাসনিক কার্যালয় এবং সিলেট ও ঢাকায় একাডেমিক কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। সফলভাবে পাইলট প্রশিক্ষন গ্রহনের পর কমার্শিয়াল লাইসেন্স অর্জনের পর টিএসি এ্যারোনোটিক্যাল একাডেমীর প্রথম একশজন শিক্ষার্থীকে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ (বিডি) লিমিটেডে কর্মসংস্থান এর সুযোগ থাকবে। এ বছরের শেষ নাগাদ কমিউটার এয়ারলাাইন্স এর কার্যক্রম শুরু করার পরিকল্পনা রয়েছে। এ ছাড়া হেলিকপ্টার এবং সী প্লেনের মাধ্যমে চার্টার ফ্লাইট পরিচালনার পরিকল্পনা রয়েছে। গত কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশী এয়ারলাইন্সগুলোতে পর্যাপ্ত কমার্শিয়াল পাইলট না থাকায় এয়ারলাইন্সগুলো পরিচালনা সংকটে আছে। এ থেকে উত্তরনের উদ্দেশ্যেই টিএসি এ্যারোনোটিক্যাল একাডেমীর আতœপ্রকাশ।”
স্বল্প সময়ে গ্রহণযোগ্য খরচে পরিপূর্ন প্রশিক্ষনের মাধ্যমে যোগ্য পাইলট তৈরী করাই হবে টিএসি এ্যারোনোটিক্যাল একাডেমীর মূল লক্ষ্য। এখান থেকে প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত পাইলটরা ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সসহ অন্যান্য দেশী-বিদেশী এয়ারলাইন্সে পাইলট হিসাবে চাকুরীর করার সুযোগ পাবে।
এছাড়া টিএসি এভিয়েশনের নিজস্ব হ্যাঙ্গার ও ট্রেনিং ফ্লাইটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মাননীয় সংসদ সদস্যবৃন্দসহ সিলেটের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সিলেটের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, সিভিল এভিয়েশনের কর্মকর্তাবৃন্দ, সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ (বিডি) লিমিটেড ও টিএসি এ্যারোনোটিক্যাল একাডেমীর পরিচালক ও কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »