জ্যাকসনের কন্যার আত্মহত্যার চেষ্টা

বার্তবাংলা রিপোর্ট :: বুধবার সকালে কব্জি কেটে আত্মহত্যার চেষ্টার পর ক্যালিফোর্নিয়ার একটি হাসপাতালে চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে আছেন প্রয়াত পপতারকা মাইকেল জ্যাকসনের কন্যা প্যারিস জ্যাকসন। খবর টিএমজির।

সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সূত্র জানায়, লস এঞ্জেলসের কাছে ক্যালাবাস এলাকায় প্যারিসের বাসভবন থেকে জরুরি সাহায্য চেয়ে ফোন করা হয় স্থানীয় পুলিশ বিভাগকে। সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। অতিরিক্ত ওষুধ সেবন এবং এলোপাথারিভাবে নিজের কব্জি কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা করায় জরুরী বিভাগে ভর্তি করা হয় প্যারিসকে। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহণের পর এখন সুস্থ আছেন তিনি।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্যারিসের মায়ের আইনজীবী পেরি স্যান্ডার্স জুনিয়র। এক লিখিত বিবৃতিতে তিনি জানান, ১৫ বছর বয়সটি সবসময়ই মানুষের জন্য সংবেদনশীল এক সময়। এই সময়টি পার করা আরো বেশি কঠিন হয়ে পড়ে যখন কেউ তার সবচেয়ে কাছের মানুষকে হারায়। প্যারিস এখন সুস্থ আছেন এবং যথাযথ চিকিৎসা নিচ্ছেন। দয়া করে এই মুহূর্তে তার এবং তার পরিবারের গোপনীয়তাকে সম্মান করুন।

১৫ বছর বয়সি প্যারিসের আত্মহত্যার চেষ্টার কারণ এখনো জানা যায়নি; তবে ধারণ করা হচ্ছে কিছুদিন ধরেই বিষণœতায় ভুগছিলেন তিনি। মঙ্গলবার প্যারিসের সর্বশেষ টুইটগুলোতেও ছিলো বিষণœতার সুর। ওই টুইটগুলোতে তিনি লিখেছিলেন, “গতকালও মনে হচ্ছিলো, আমার সব সমস্যা মিটে গেছে; এখন মনে হচ্ছে সমস্যাগুলো স্থায়ীভাবেই আমার জীবনে থাকতে এসেছে।” এবং “অশ্রু এতো নোনতা কেন?”। সূত্র জানিয়েছে, এর আগেও একাধিকবার আত্মহত্যার কথা ভেবেছিলেন তিনি।

প্রয়াত পপতারকা মাইকেল জ্যাকসনের তিন সন্তানের মধ্যে দ্বিতীয় প্যারিস। অতিরিক্ত ওষুধ সেবন করে বাবার মৃত্যুর পর থেকে বড়ভাই প্রিন্স এবং ছোট ভাই ব্ল্যাঙ্কেটকে নিয়ে দাদী ক্যাথরিনের সঙ্গে বাস করতেন প্যারিস। সম্প্রতি রূপালি জগতেও নাম লেখান তিনি। ‘লন্ডন ব্রিজ অ্যান্ড দা থ্রি কিজ’ নামের নির্মাণাধীন একটি সিনেমায় অভিনয় করেছেন প্যারিস ।