চট্টগ্রামে গ্যাস সংকটে আটকে আছে হাজার কোটি টাকার গার্মেন্টস বিনিয়োগ

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: শুধুমাত্র গ্যাস সংযোগ না পাওয়ায় বন্দরনগরী চট্টগ্রামে কয়েক হাজার কোটি টাকার গার্মেন্টস বিনিয়োগ আটকে আছে। সেইসঙ্গে বিদ্যুতের লোডশেডিং যুক্ত হওয়ায় নাভিশ্বাস হয়ে উঠছে গার্মেন্টস মালিকদের। রাজনৈতিক অস্থিরতার পাশাপাশি এ দু’সমস্যায় পড়ে ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে তাদের।

দেশের প্রধান সমুদ্র বন্দরের অবস্থান চট্টগ্রামে হওয়া সত্ত্বেও গার্মেন্টস সেক্টরে যথাযথ উন্নতি হয়নি। গ্যাসের অভাবে আটকে আছে শত শত কোটি টাকার বিনিয়োগ। আর এ জন্য গার্মেন্টস ব্যবসায়ীরা ভুগছেন গ্যাস সমস্যাকে।

বিজিএমইএ’র সাবেক প্রথম সহ সভাপতি নাসির উদ্দিন চৌধুরী বলেন, “অনেক বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগ করে গ্যাসের অভাবে শত শত কোটি টাকার বিনিয়োগ অনিশ্চয়তার মাঝে পড়ছে।”

বিজিএমইএ’র পরিচালক অঞ্জন শেখর দাস বলেন, গ্যাসের অভাবে অনেক গুলো প্রজেক্ট বন্ধ হয়ে গেছে।

অপরদিকে নাসির উদ্দিন চৌধুরী বলেন, সম্প্রতি উচ্চ আদালতের নির্দেশে গ্যাস সংযোগ প্রদানের ক্ষেত্রে যে বাধা ছিলো তা কেটে গেছে। কিন্তু গ্যাস সংযোগের তালিকায় চট্টগ্রামের কোনো প্রতিষ্ঠানের নাম না থাকায় হতাশ ব্যবসায়ীরা।

গ্যাস সংকটের সাথে যুক্ত হয়েছে বিদ্যুতের লোড শেডিংও।

নাসির উদ্দিন আহমেদ বলেন, লোড শেডিংয়ের কারনে জেনারেটরে উপর অনেক চাপ পড়ছে আর যার ফলে সময় মত তারা কাজ শেয় করতে পারছেন না।

বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংকটের কারনে অনেক গার্মেন্টস ব্যবসায়ীরা গার্মেন্টস বন্ধ করে দিচ্ছে আবার সময় মত ডেলিভারি দিতে পারছে না যার ফলে শত শত টাকা ক্ষতিপূরণ দিবে হচ্ছে বলে জানান বিজিএমইএ’র সাবেক এই সহ সভাপতি।

ব্যবসায়ীরা আশা করছেন, গ্যাস সংযোগ পাওয়া গেলে আগামী কয়েক মাসের মধ্যে ৫০টির বেশি গার্মেন্টস কারখানার কাজ শুরু করা সম্ভব। এক্ষেত্রে কর্মসংস্থান হবে অন্তত ৩০ হাজার শ্রমিকের।