মো. মাহমুদুল হাসান, মাদ্রিদ (স্পেন) থেকে »

Dating App

চলমান বিশ্ব জলবায়ু সম্মলনে এখন জোরালোভাবে
আলোচনা হচ্ছে প্যারিস চুক্তির ছয় নম্বর আর্টিকেল নিয়ে। মূলত এটিই হচ্ছে এবারের সম্মেলনের মূল আলোচ্যসূচি।

আর্টিকেল-৬ এ মূলত কিভাবে কার্বন নিঃসরণ কমানো হবে, যেসব দেশ জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য দায়ি নয়, কিংবা জলবায়ুর পরিবর্তনে কোন ভূমিকা রাখছে না অথচ কার্বন নিঃসরণ কমাবে বা কমাচ্ছে তাদের কিভাবে সুযোগ সুবিধা দেয়া হবে সেটি নিয়ে উন্নত বিশ্ব ও অনুন্নত বিশ্বের মধ্যে মেকানিজম ডেভলপ করা নিয়ে আলোচনা চলছে।

এবারের সম্মেলনেই সিদ্ধান্ত হবে কার্বন নিঃসরণ কমানোর সুবিধা ২০২০ সালের আগে থেকে গণনা শুরু হবে, নাকি ২০২০ সালের পর থেকে গণনা শুরু হবে। এবারের সম্মলনের থেকে এ বিষয়ে একটা সিদ্ধান্ত আসার কথা রয়েছে।

এর বাইরে এবারের সম্মেলনে গ্লোবাল এনভায়রনমেন্ট ফ্যাসিলিটিজ (জিইএফ) নিয়েও আলোচনা চলছে। জিইএফ থেকে প্রতি বছর অভিযোজনের জন্য ক্ষতিগ্রস্থ ও জলবায়ু ঝুঁকির মধ্যে থাকা দেশগুলোকে অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হয়। কিন্ত এই তহবিলে উন্নত দেশগুলো যে বরাদ্দ দিয়ে আসছিল সেটি এখন কমিয়ে দিয়েছে।

প্রতি চার বছর অন্তর অন্তর এই তহবিল রিনিউ করা হয়। সপ্তমবারে এসে এটি আবার চার বছরের জন্য রিনিউ করা হয়েছে। তবে সপ্তমবারে এসে উন্নত বিশ্ব জিইএফ তহবিলে বরাদ্দ কমিয়ে দিয়েছে। কেন বরাদ্দ কমিয়ে দিয়েছে সেটি নিয়ে এখন উন্নত বিশ্ব এবং অনুন্নত বিশ্বের দেশগুলোর মধ্যে আলোচনা চলছে।

বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের সদস্যরা জানান, গত বছর যেখানে বাংলাদেশকে ১০ মিলিয়ন ডলার বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল, এবছর সেটি কমিয়ে ৬ দশমিক ৬ মিলিয়ন ডলার দেয়া হয়েছে। এভাবে প্রতিবছর বরাদ্দ কমিয়ে দেয়া হলে এক সময় এই তহবিল অকার্যকর হয়ে পড়বে।

ঝুঁকির মুখে থাকা ক্ষতিগ্রস্থ দেশগুলোর অভিযোজনের জন্য উন্নত বিশ্ব এই তহবিল করলেও এখন সেই তহবিলে বরাদ্দ কেন কমিয়ে দেয়া হয়েছে এ নিয়ে দেনদরবার চলছ।

বাংলাদেশসহ জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলো বলছে, জিইএফ তহবিলে দেশগুলোর বরাদ্দ আরও বাড়ানোর জন্য।

প্রসঙ্গত, ২ ডিসেম্বর মাদ্রিদে ২৫তম এই সম্মেলন শুরু হয়। চলবে ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »