কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হচ্ছে জম্মু-কাশ্মীর

গত ৫ আগস্ট ভারত সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ তুলে নেয়ার মাধ্যমে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের ঘোষণা দেয়া হয়। প্রায় তিন মাস পর আজ (বৃহস্পতিবার) আনুষ্ঠানিকভাবেই দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভক্ত হচ্ছে এই ভূস্বর্গ।

রাজ্যের মর্যাদা হারিয়ে বৃহস্পতিবার থেকেই দু’টি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল অর্থাৎ জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখে বিভক্ত হচ্ছে উপত্যকা। গিরিশচন্দ্র মুর্মু শ্রীনগরের লে. গভর্নর এবং রাধা কৃষ্ণ মাথুর লাদাখের লে. গভর্নর হিসেবে শপথ নিয়েছেন।

দু’টি এলাকার পুলিশ এবং আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থা থাকবে কেন্দ্রের হাতে। আর ওই দুই অঞ্চলে জমি কেনা-বেচার বিষয়টি থাকবে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের নির্বাচিত সরকারের হাতে।

জম্ম-কাশ্মির বিভক্ত হওয়ায় এখন ভারতের রাজ্যের সংখ্যা ২৮টি। অপরদিকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হচ্ছে ৯টি। লাদাখ সরাসরি কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনে লে. গভর্নর দ্বারা পরিচালিত হবে।

গত ৫ আগস্ট ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের পরপরই জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ, ওমর আবদুল্লাহ এবং মেহবুবা মুফতিসহ কয়েকশ রাজনৈতিক নেতাকে গ্রেফতার করা হয়। একই সঙ্গে দেশজুড়ে কারফিউ জারি এবং কড়া নিরাপত্তা জারি করা হয়।