গরুই যখন সকল হানাহানির মূল…

গরুই যখন সকল হানাহানির মূল… গরু নিয়ে দক্ষিণ সুদানে কী চলে চলুন তা জেনে নিই।

Roads to South Sudan: A travel experience

Marriage Policy of South Sudan

১. যত খুশি বিয়ে করা যায়।

২. এর ভরণপোষণের কোন বাধ্যবাধকতা নাই।

৩. বিয়ের পর বউরা যার যার বাবার বাড়িতেই থাকে। ছেলে তার সাথে শুধু একজন বউকেই রাখে।

৪. ছেলেরা কোন কাজ করে না। সংসাসের দেখাশুনা থেকে শুরু করে কৃষিকাজ সবই বউরা করে।

৫. মেয়ের বাবা ছেলের চাকরি, বাড়ি, গাড়ি খুজেনা। শুধু দেখে ছেলের কইটা গরু আছে।

৬. যার যত বেশি গরু আছে সে ততো বেশি বড়লোক এই দেশে।

৭. বিয়ে করতে হলে মেয়ের বাবাকে must উপহার হিসেবে গরু দিয়ে খুশি করতে হবে। আর যদি মেয়ের বাবা খুশি না হয় তাহলে বুঝতে হবে গরু আরো বেশি দিতে হবে।

৮. যার গরু নাই তার বিয়েও নাই! 😂

৯. এই দেশে টাকার কোন দাম নাই। গরুই সব।

১০. তাই যার গরু নাই সে বিয়ে করার জন্য অন্নের গরু চুরি করে। আর গরুর মালিকরা গরু পাহারা দেবার জন্য AK-47 নিয়ে ঘুরে।

১১. গ্রামের সব গরু এক জায়গায় রেখে গ্রামের সবাই মিলে পাহারা দেয়। এক একটি পাহারা কেন্দ্রে প্রায় ১০০০০- ২০০০০ গরু থাকে।

১২. গরু লুটপাট নিয়ে এদের যত মারামারি, খুনাখুনি, গুলাগুলি।

এভাবেই তারা প্রতিদিন মারামারি করে মরতেসে। সাধারণ মানুষের হাতে যখন AK-47 থাকে তখন তার পরিণতি কী হতে পারে তা ওই দেশকে দেখলে ভাল করেই বুঝা যায়। গরুই যখন সকল হানাহানির মূল…

সূত্র : মাহবুব