ভারতে ৬ষ্ঠ দফার ভোটের আগেই সহিংসতায় নিহত ১

ভারত

ষষ্ঠ দফার ভোট শুরুর আগের রাত থেকেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ। শনিবার গভীর রাতে ঝাড়গ্রামের জুনাসোলায় বিজেপির বুথ সভাপতির উপর হামলা চালানো হয়। হামলায় বিজেপির বুথ সভাপতি শ্রী রামিন সিংয়ের মৃত্যু হয়েছে। বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূলের আশ্রিত দুষ্কৃতীরাই তাকে খুন করেছে। যদিও তৃণমূলের তরফ থেকে এমন অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করা হয়েছে।

এদিকে বাঁকুড়াতেও বিজেপি কর্মীর উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। শনিবার রাতেই বাঁকুড়া শহরের রবীন্দ্র সরণিতে বিজেপি কর্মী বিপু দাসের ভাই শিবশঙ্কর দাসের উপর হামলা চালানো হয়। এতে গুরুতর আহত হন তিনি। তার মাথা ফেটে রক্তাক্ত হয়ে যায়। তৃণমূলের কর্মীরাই এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বিজেপি।

ভোররাতে কাঁথি লোকসভা, চণ্ডিপুর বিধানসভা, মুহাম্মদপুর অঞ্চলের পশ্চিমবাড় গ্রামের ২৩, ২৪ নং বুথের বিজেপি বুথকর্মী অনন্ত গুচ্ছাইত এবং রঞ্জিত মাইতির ওপর পুলিশের পোশাকে তৃণমূলের কর্মীরা হামলা চালায় বলেও অভিযোগ উঠেছে। গুলিতে আহত হয়েছেন বিজেপির দুই কর্মী। তবে এসব হামলার কথা অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

আজ পশ্চিমবঙ্গের আরও ৮ আসনে ভোট হচ্ছে। বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম ও মেদিনীপুরে ষষ্ঠ দফার ভোট হচ্ছে মূলত এই পাঁচ জেলার লোকসভা আসনগুলোতে। এক ঝাঁক হেভিওয়েটের ভাগ্য নির্ধারণ হবে এই ভোটে।

সবচেয়ে নজরকাড়া প্রতিদ্বন্দ্বিতা আজ মেদিনীপুর আসনে। রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং বর্ষীয়াণ রাজনীতিক তথা তৃণমূলের রাজ্যসভা সাংসদ মানস ভুঁইয়ার মধ্যে লড়াই সেখানে। পাশের আসন ঘাটালেও লড়াই জমজমাট তৃণমূলের তারকা প্রার্থী তথা ঘাটালের বিদায়ী সাংসদ দেব ও বিজেপির প্রার্থী তথা প্রাক্তন আইপিএস ভারতী ঘোষের মধ্যে।

বাঁকুড়ায় তৃণমূলের টিকেটে লড়ছেন আর এক হেভিওয়েট সুব্রত মুখোপাধ্যায়। পুরুলিয়ায় মূল লড়াই তৃণমূল আর বিজেপির মধ্যে হলেও প্রদেশ কংগ্রেসের কার্যকরী সভাপতি তথা দীর্ঘদিনের বিধায়ক নেপাল মাহাত নজর কাড়ছেন।

ঝাড়গ্রামের ছবিটাও একই। মূল লড়াই তৃণমূল-বিজেপিতেই। কিন্তু নজর কাড়ছেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা সিপিএম প্রার্থী দেবলীনা হেমব্রম।