বার্তাবাংলা ডেস্ক »

Dating App

ভারতের ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ক্রিকেট টুর্নামেন্ট আইপিএল প্রতি আসরেই নানান আকর্ষণ ও চমক নিয়ে হাজির হয়। চলতি আসরের নিলামেই যেমন অখ্যাত এক স্পিনারকে সাড়ে ৮ কোটি রুপি দিয়ে কিনে হইচই ফেলে দিয়েছিল কিংস এলেভেন পাঞ্জাব।

অফ স্পিন, লেগ ব্রেক, গুগলি, ক্যারাম বল, ফ্লিপার, টপ স্পিন এবং ব্যাটসম্যানের পায়ের পাতা লক্ষ্য করে দেয়া স্লাইডার আর্ম ইয়র্ক- এই সাত ধরনের বোলিং নিয়ে আইপিএলের নিলামে সাড়ে আট কোটি রুপিতে বিক্রি হয়েছিলেন তামিলনাড়ুর অনভিষিক্ত খেলোয়াড় বরুন চক্রবর্তী।

তবে নিজের অভিষেক ম্যাচের প্রথম ওভারেই ২৫ রান গুনেছিলেন বরুন। ফলে সবাইকে চমকে দেয়ার পরিকল্পনাটা সে অর্থে কাজে লাগেনি পাঞ্জাবের। তাই এবার প্ল্যান বি নিয়ে এগুচ্ছে প্রীতি জিনতার দল। এবার তাদের চোখ আইসল্যান্ডের রহস্য স্পিনার কাট জনসনের দিকে।

আজ (সোমবার) দুপুরেই পাঞ্জাবের অনুশীলনে যোগ দিয়েছেন কাট। নেটে বেশ কয়েকটি ট্রায়ালের পর কাটের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে পাঞ্জাব ফ্র্যাঞ্চাইজি। ধারণা করা হচ্ছে চলতি সপ্তাহেই আইপিএল অভিষেক হয়ে যেতে পারে তার।

আর এমনটা হলে নর্দিক দেশগুলোর মধ্য থেকে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে আইপিএল খেলার গৌরব অর্জন করবেন কাট। এমন মুহূর্তে রোমাঞ্চিত কাট সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘এটা অবিশ্বাস্য! আমার কম্পিউটারে আইপিএল দেখা থেকে এখন প্রথম নর্দিক ক্রিকেটার হিসেবে মাঠে খেলা। আমার সুদূরতম স্বপ্নগুলোর একটি। আমি প্রস্তুত, অপেক্ষার তর সইছে না।’

দলের সঙ্গে যোগ দেয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে কাট লিখেন, ‘আমরা এখন সিংহের দল। আমি আজকের একাদশে খেলবো কি-না নিশ্চিত বলতে পারছি না। তবে আমি এত দূর নিশ্চয়ই বাটার চিকেন খেতে আসিনি।’

নিজেদের শিবিরে কাটের আগমনী বার্তা জানিয়ে কিংস এলেভেন পাঞ্জাব কর্তৃপক্ষ টুইট বার্তায় লিখেছে, ‘কাট চলে এসেছে। আইসল্যান্ডের এই রহস্য স্পিনার এরই মধ্যে প্রধান কোচ মাইক হেসনের সঙ্গে কাজ শুরু করে দিয়েছেন এবং দলের সঙ্গে অনুশীলনও করছেন।’

এদিকে কাটের অন্তর্ভুক্তির ব্যাপারে পাঞ্জাবের প্রধান নির্বাহী সতীশ মেনন বলেন, ‘এটাই তো আইপিএলের বিশেষত্ব। এটাই প্রমাণ করে যে ক্রিকেট আসলেই বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় একটি খেলা যার কোনো সীমা নেই। আইসল্যান্ড থেকে একজন ক্রিকেট দলে অন্তর্ভুক্ত করা ঐতিহাসিক মুহূর্ত হয়ে থাকবে।’

মূলত ইউরোপ অঞ্চলে নিজের বিশেষ এক ডেলিভারির মাধ্যমেই সবাইকে চমকে দিচ্ছেন কাট জনসন। যে ডেলিভারিটির নাম দেয়া হয়েছে ‘ফিফ্লিও’। এ ফিফ্লিও ডেলিভারির বিশেষত্ব হলো এটা মূলত এক ধরনের ব্যাক স্পিন ডেলিভারি। বল ছাড়ার আঙুলগুলো বলের নিচে চলে যায় এবং পিচ করার সময় গতি প্রায় অর্ধেক হয়ে যায়। ফলে গতি তারতম্যের কারণে ব্যাটসম্যান টাইমিং করা দূরহ হয়ে পড়ে। অনেকটা পেসার ‘নাকল’ বলের মত।’

আজ রাত বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে আটটায় দিল্লি ক্যাপিট্যালসের মুখোমুখি হবে কিংস এলেভেন পাঞ্জাব। সে ম্যাচের একাদশে কাট জনসনকে দেখা গেলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »